৪৩ শিক্ষককে এমপিও সুবিধা দিতে হাইকোর্টের রায়

দেশের বিভিন্ন জেলার ৪৩ জন শিক্ষককে এমপিও (মান্থলি পেমেন্ট অর্ডার) সুবিধায় আনার নির্দেশনা দিয়ে রায় ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার (৫ জুলাই) বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রায় দেন। ফলে এই ৪৩ জন শিক্ষকের এমপিও সুবিধা পাওয়ার ক্ষেত্রে আর কোনও বাধা রইলো না বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

বৃহস্পতিবার আদালতে রিটকারীদের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্যাহ মিয়া। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আল আমিন সরকার।

অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্যাহ মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, ‘বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান) শিক্ষক ও কর্মচারীদেরকে বেতনভাতার সরকারি অংশ প্রদান ও জনবল কাঠামো সম্পর্কিত নির্দেশিকা অনুযায়ী বেতন দিয়ে থাকে। নীতিমালা অনুযায়ী এমপিও প্রদানে কোনও প্রতিবন্ধকতা না থাকা সত্ত্বেও তাদেরকে (৪৩ জন শিক্ষক) এমপিও দেওয়া হয়নি।’

এই আইনজীবীর ভাষ্য, ‘ভুক্তভোগীরা বিভিন্ন দফতরে যোগাযোগ করেও এমপিওভুক্তির সুবিধা না পেয়ে হাইকোর্টের নির্দেশনা চেয়ে পৃথক চারটি রিট করেন। ওইসব রিটের শুনানি নিয়ে রুল জারি করেছিলেন আদালত। বৃহস্পতিবার ওই চারটি রিটের চূড়ান্ত শুনানি শেষে আদালত ৪৩ শিক্ষককে এমপিওভুক্ত করার নির্দেশনা দিয়েছেন।’

রিটকারীরা হলেন— ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট আদর্শ মহিলা বিদ্যালয়ের প্রভাষক আলী আশরাফ, ধারা আদর্শ ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক আসাদুজ্জামান, বীমপুর হাইস্কুলের সহকারী শিক্ষক আতিকুর রহমান, ময়দানদীঘি দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক তানিয়া সুলতানা, করিমুন্নেছা হাফিজ মহিলা ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক আব্দুস সবুর, নোমান মাহমুদ, মো. গোলাম রব্বানী, আতিকা বাসরী, জিল্লুর রহমান ও আতিক পারভেজ, মুন্সীগঞ্জ গালর্স হাইস্কুলের সহকারী শিক্ষক গাজী আসিফ আফসার রিয়েল প্রমুখ।

বাংলা ট্রিবিউন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *