মুন্সীগঞ্জের শতবর্ষী ‘সাধনার দাদু’ আর নেই

মুন্সীগঞ্জের শতবর্ষী সবার অতি পরিচিত যতীন্দ্র চন্দ্র ভট্টাচার্য ওরফে ‘সাধনার দাদু’ আর নেই। মঙ্গলবার ১০৮ বছর বয়সে শহরের জমিদারপাড়া বাসভবনে তার মৃত্যু হয়েছে। তার স্ত্রী, এক ছেলৈ ও দুই মেয়েসহ বহু আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রয়েছে।

তার মৃত্যুর খবরে শহরে শোকের ছায়া নেমে আসে। তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে ছুটে যান বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর মো. মহিউদ্দিনসহ সর্বস্তরের মানুষ।

বিকালে শহরতলীর পঞ্চসার শ্মশানে তাকে দাহ করা হয়।

মুন্সীগঞ্জর সবচেয়ে প্রবীণ হিসাবে পরিচিত যতীন্দ্র চন্দ্র ভট্টাচার্য শহরে পুরনো কাছারীর সাধনা ঔষধালয় শাখাটি পরিচালনা করেছেন দীর্ঘদিন। একজন কবিরাজ হিসাবেও তার খ্যাতি ছিল। এই প্রতিষ্ঠানে তিনি কাজে ফাঁকে সংবাদপত্রও বিক্রি করতেন।

পরে সাধানা ঔষধালয় থেকে অবসর নিলেও সংবাদপত্র বিক্রয় কেন্দ্রটি পরিচালনা করে গেছেন মৃত্যুর আগ পর্যন্ত।

এলাকায় তার নাম হয়ে যায় ‘সাধনার দাদু’ হিসেবে। অনেকেই তার নাম জনাতেন না। বলতেন সাধনার দাদু।

তার মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন মুন্সীগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও সাবেক সাংসদ মো. মহিউদ্দিন, মুন্সীগঞ্জ-২ আসনের সাংসদ সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সাংসদ মৃণাল কান্তি দাস, মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আনিস-উজ-জামান, মুন্সীগঞ্জ পৌর মেয়র হাজী ফয়সাল বিপ্লব, সাবেক মেয়র মুজিবুর রহমান, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি মতিউল ইসলাম হিরু, মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক দুই সভাপতি মো. ইকবাল হোসেন ও মীর নাসিরউদ্দিন উজ্জ্বল, বর্তমান সভাপতি রাসেল মাহমুদ ও সাধারণ সম্পাদক ভবতোষ চৌধুরী নুপুর, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সমর ঘোষ, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি অজয় চক্রবর্তী, সহসভাপতি অভিজিৎ দাস ববি প্রমুখ।

বিডিনিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *