পাথরঘাটায় ধর্ষণ মামলা তুলে নিতে প্রবাসী দম্পতিকে মেরে ফেলার হুমকি

বরগুনার পাথরঘাটায় এক প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় মামলা করে আসামিদের হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন ওই দম্পতি। বুধবার বেলা ১১টার দিকে পাথরঘাটা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে তারা নিরাপত্তার দাবি জানিয়েছেন।

লিখিত বক্তব্যে ওই প্রবাসীর স্ত্রী বলেন, ২০০১ সালে ঢাকা মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগর উপজেলার জাপান প্রবাসী এক যুবকের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। সেই থেকে তারা পাথরঘাটার হাজিপুর এলাকায় জমি কিনে চারতলা ভবন নির্মাণ করে বসবাস করেন। ১৭ বছরেও তাদের কোনো সন্তান হয়নি।

তিনি বলেন, বিভিন্ন সময় তার স্বামী ব্যবসার কাজে বাড়িতে না থাকায় কালমেঘা দাখিল মাদ্রাসার অফিস সহকারী মো. ইব্রাহীম আমাকে পরকীয়ার প্রস্তাব দেয়। এতে রাজি না হওয়ায় গত ২০১৭ সালের ১৬ জুন তাকে বাড়িতে একা পেয়ে আমাকে ধর্ষণ করে ইব্রাহীম। এ ঘটনায় মামলা করলে ইব্রাহীম তা তুলে নিতে বিভিন্ন সময় ওই আমাকে হুমকি দিচ্ছে।

ওই গৃহবধূ আরও বলেন, স্থানীয়ভাবে ইব্রাহীম প্রভাবশালী হওয়ায় হাজিপুর বাজারের দোকানদারদের হুকুম দিয়েছে আমাদের পরিবারের কাছে কোনো নিত্যপ্রয়োজনীয় মালামাল বেচাকেনা করা যাবে না। তাই ওই বাজারের কোনো ব্যবসায়ী আমার পরিবারের কাছে মালামাল বিক্রি করছে না।

এ ব্যাপারে ওই দম্পতি তাদের নিরাপত্তা চেয়ে পাথরঘাটা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন।

এ বিষয় ইব্রাহীম জানান, তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা। ওই গৃহবধূ এলাকায় অসামাজিক কার্যকলাপ করায় সোনালি মাদ্রাসা হাজিপুর বাজারে তার বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীরা মানববন্ধন করে তাকে সমাজবাদ দিয়েছে।

যুগান্তর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *