‘টাকার লেনদেন নিয়েও হত্যাকাণ্ড হতে পারে’

মুন্সীগঞ্জে গত রবিবার লালচাঁন শেখ (৬০) নামে এক বৃদ্ধকে হত্যা করা হয়। বিদেশ পাঠানোর ব্যাপারে টাকা-পয়সার লেনদেন নিয়ে এই হত্যাকাণ্ড হতে পারে বলে ধারণা করছেন হাতিমারা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ও তদন্ত কর্মকর্তা এসআই জিল্লুর রহমান। তিনি বলেন, ‘নিহত ব্যক্তির দুই ছেলে কাতার ও এক ছেলে ইতালি থাকেন। ছেলেদের সহায়তায় তিনি এলাকার ৬/৭ জনকে বিদেশ পাঠিয়েছেন। তাই, আমরা এমন ধারণা করছি।’

এদিকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় বৃদ্ধের লাশ পাওয়ার ঘটনায় মামলার তিন দিন পেরুলেও কাউকেই গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। ২৫ মার্চ (রবিবার) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার বজ্রযোগীনি ইউনিয়নের মামাসার গ্রামে গাছের সঙ্গে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

ঘটনার দিন লালচাঁন শেখের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম বাদী হয়ে সদর থানায় একটি মামলা (নম্বর ৪২) করেন।

তিনি ওই গ্রামের মৃত সমের উদ্দিন শেখের ছেলে। তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই জিল্লুর রহমান।

নিহতের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম জানান, শনিবার এশার নামাজের পর আফজাল নামের একজনের ফোন পেয়ে তার স্বামী বাইরে যান। কিন্তু আর ফেরেননি। রাত দশটার পর খোঁজাখুঁজি করেও পাইননি। পরের দিন সকালে গাছের সঙ্গে বাঁধা অবস্থায় তার লাশ পাওয়া যায়।

পুলিশ জানায়, সন্দেহভাজন আফজাল পালিয়েছে।

হাতিমারা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ও তদন্ত কর্মকর্তা এসআই জিল্লুর রহমান বলেন, ‘নিহতের মোবাইলের কললিস্ট ধরে তদন্ত করা হচ্ছে।’

মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) এস এম সাখাওয়াত হোসেন জানান, নিহতের ময়নাতদন্তের জন্য ভিসেরা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

বাংলা ট্রিবিউন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *