মিরকাদিম পৌরসভায় যথাযথ মর্যাদায় উৎসব আনন্দের মধ্যদিয়ে বঙ্গবন্ধুর জম্মদিন উদযাপন

চেতনায় একাত্তরঃ ১৭ইমার্চ,শনিবার,মিরকাদিম পৌরসভার আয়োজনে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জম্মদিন ও জাতীয় শিশু-কিশোর দিবস উপলক্ষ্যে বঙ্গবন্ধুর স্থৃতিচারন,কেক কাটা,আনন্দর‌্যালী ও সঙ্গিতানুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে উদ্যাপন করা হয়।

মিরকাদিম পৌর মেয়র শহিদুল ইসলাম শাহীনের সভাপতিত্বে ও বিশিষ্ট সামাজিক সংগঠন মাসুদ ফকরীর সঞ্চালনায় অনুষ্টানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকেন বঙ্গবন্ধুর চীফ সিকিউরিটি অফিসার, মুন্সিগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান,মুন্সিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি,সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ মহিউদ্দিন আরো উপস্থিত থাকেন জেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক বীরমুক্তিযোদ্ধা কামালউদ্দিন আহম্মেদ,ম.মনিরুজ্জামান শরীফ, পৌর আওয়ামী লীগ ভারপ্রাপ্ত সাধারন সস্পাদক,মোঃ নাছির উদ্দিন আহম্মেদ,ওয়ার্ড কাউন্সিলারবৃন্দ,ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি,সাধারন সম্পাদকবৃন্দ এবং স্থানীয় কলেজ,উচ্চ বিদ্যালয়,প্রাথমিক বিদ্যালয়সমূহের শিক্ষকমন্ডলী-ছাত্রছাত্রীবৃন্দ এবং সকল স্তরের জনসাধারন।

বঙ্গবন্ধুর স্থৃতিচারন করে জননেতা আলহাজ্ব মোঃ মহিউদ্দিন বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর হৃদয় ছিল কোমল তিনি দেশের মানুষকে যেমন ভালোবাসতেন তেমণী তিনি শিশুদের অত্যন্ত আদর করতেন ভালোবাসতেন, আজকে এই শিশুদের দেখে আমার বঙ্গবন্ধুর মহানুবতার কথা বার বার মনে পড়ছে আমি আরেক দিন এসে শিশুদের কাছে বঙ্গবন্ধুর অজানা অনেক কথা বলবো, এই সময় তিনি কাঁদতে থাকেন,গাল বেয়ে টপ টপ করে চোখের জল গড়িয়ে পরে।

আরো বক্তব্য কামালউদ্দিন আহম্মেদ, ম.মনিরুজ্জামান শরীফ, কাউন্সিলার আঃ মজিদ, কাউন্সিলার আবু তাহের প্রমুখ ব্যাক্তিবর্গ, সভাপতির বক্তব্যে মেয়র শহিদুল ইসলাম শাহীন বলেন আমার নেতা মোঃ মহিউদ্দিনকে কাছে পেয়ে আমরা আনন্দিত উৎফুল্ল, মনে হয় বঙ্গবন্ধুকে কাছে পেয়েছি, বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ঐহিহাসিক ভাষনে যখন বঙ্গবন্ধুর পিছনে আমার নেতা মোঃ মহিউদ্দিনকে হাততালি দিতে দেখি তখন গর্বে আমার বুকটা ভরে যায়,মোঃ মহিউদ্দিনের নেতৃত্বে আমি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে যুক্ত থাকতে পেরে গর্বিত,আশা করি আগামী জাতীয় নির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনার মনোনিত প্রার্থীকে মোঃ মহিউদ্দিনের দিকনিদের্শনায় জয়ী করে দেশরতœ শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে পারবো ইনশাল্লাহ। জননেতা মোঃ মহিউদ্দিন শিশু-কিশোরদের নিয়ে বঙ্গবন্ধুর জম্মদিনের কেক কাটেন।

পরবর্তীতে এক বিশাল র‌্যালী রিকাবী বাজার প্রদক্ষিন করে পৌর সভায় এসে শেষ হয়। শত শত শিশু-কিশোরদের সাথে নিয়ে মোঃ মহিউদ্দিন আনন্দ উৎসাহের মধ্যদিয়ে প্রায় তিন ঘন্টাব্যাপী সঙ্গিতানুষ্টান উপভোগ করেন এবং শিশুদের সাথে আনন্দে মেতে থাকেন, উপস্থিত প্রায় ৫ হাজার ছাত্র-ছাত্রী প্রিয় মানুষটিকে আপন করে পেয়ে সারাটা সময় খুশীতে মেতে থাকেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *