টঙ্গীবাড়ীতে গৃহবধূর লাশ রেখে পালাল শ্বশুর-শাশুড়ি

টঙ্গীবাড়ী উপজেলার লাখারন গ্রামে পিত্রালয়ে লাশ রেখে পালাল নিহতের শ্বশুর-শাশুড়ি। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ মর্গে প্রেরণ করেছে। জানা গেছে, উপজেলার লাখারন গ্রামের আ. রবের মেয়ে নিহত শিলা আক্তারের সঙ্গে পাশের কাঠাদিয়া গ্রামের আলী হোসেন হাওলাদারের ছেলে শামীমের (৩২) পারিবারিকভাবে ৮ মাস পূর্বে বিয়ে হয়। বিয়ের পর হতে তারা গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার জড়িনা বাজারের পাশে বাসা ভাড়া নিয়ে থাকত। ঘর-সংসার করাকালীন যৌতুকের টাকা লেনদেন নিয়ে শ্বশুর-শাশুড়ির সঙ্গে বিরোধ চলে আসছিল শিলার। এর আগে যৌতুকের টাকা না দেয়ায় তাকে স্বামীসহ বাড়ি হতে বের করে দেয় শ্বশুর-শাশুড়ি বলে জানান নিহতের ভাই সিফাত। পরে রোববার রাত ৩টায় শিলার পরিবারকে ফোন করে জানানো হয় শিলাকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

কিন্তু এর ১০ মিনিট পরে জানানো হয় শিলাকে ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেছে। পরে নিহতের শ্বশুর আলী হোসেন এবং শাশুড়ি সাজেদা বেগম লাশ নিয়ে সোমবার সকাল ৯টায় নিহতের পিত্রালয় লাখারন গ্রামে উপস্থিত হয়ে জানান, শিলা রাতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। কিন্তু নিহতের পরিবার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য টঙ্গীবাড়ী থানা পুলিশকে খবর দিলে নিহতের শ্বশুর-শাশুড়ি লাশ রেখে পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে টঙ্গীবাড়ী থানা ওসি ইয়ারদৌস হাসান জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

যুগান্তর
ছবিঃ মামুনের ফেবু থেকে সংগৃহিত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *