শ্রীনগরে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে অনুপুস্থিত প্রথম সারির নেতারা

আরিফ হোসেন: শ্রীনগরে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মামলার রায়ের প্রতিবাদে শুক্রবার বিক্ষোভ মিছিল করেছে উপজেলা বিএনপির দুই গ্রুপ। আলাদা আলাদা ভাবে নামে মাত্র মিছিলে উপস্থিত ছিলেনন উপজেলা বিএনপির প্রথম সারির কোন নেতা।

শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলা বিএনপির সভাপতি শহিদুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম কানন গ্রুপের নেতা কর্মীরা শ্রীনগর সরকারী কলেজ গেট এলাকা থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন মুকুল, উপজেলা যুবদলের সভাপতি জয়নাল আবেদীন মৃধা জেমস, আলীনুর হোসেন চঞ্চল, ছিদ্দিকুর রহমান মিলন, কাজী শামিম ইমাম সাচ্চু, আহসানুল হক, আবুল মৃধা, শহিদুল ইসলাম, ছাত্রনেতা মাহবুবুর রহমান মিন্টু, ফয়সাল আহমেদ, জামিল হোসেন বিপ্লব, লিমন, ফারুক মৃধা, এমদাদুল হক রজিন, খাদিমুল ইসলাম অপু, নুরু, হৃদয় প্রমুখ ।

এই গ্রুপের সভাপতি শহিদুল ইসলাম, সহ সভাপতি আশ্রাফ হোসেন মিলন, রাহাদুল ইসলাম রিপন, যুগ্ন সম্পাদক এমদাদ সরদার সহ প্রথম সারির কোন নেতা মিছিলে উপস্থিত ছিলেননা। তবে এই গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম কানন ওমরা হজ্ব পালনের জন্য পবিত্র মক্কা শরীফে অবস্থান করছেন বলে দলীয় সূত্র জানায়।

অপরদিকে উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব মমিন আলী ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন গ্রুপের লোকজন জুমআর নামাজের পর উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান মতিনের নেতৃত্বে কয়েকজন নেতাকর্মী কলেজ গেটে মিছিল বের করে। মিছিলে উপজেলা বিএনপির সবেক সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মমিন আলী, জেলা বিএনপির সাবেক নেতা ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সেলিম হোসেন খান, জেলা মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জাহানারা বেগম সহ ওই গ্রুপের প্রথম সারির কোন নেতা মিছিলে উপস্থিত ছিলেন না। এই গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেনকে গত ৪ ফেব্রুয়ারী রাতে পুলিশ নিজ বাড়ী থেকে গ্রেপ্তার করে। তার মুক্তির দাবীতে এখনো পর্যন্ত কোন সভা-সমাবেশ বা ব্যানার-ফেষ্টুন দিতে পারেনি উপজেলা বিএনপির এই অংশ।

আন্দোলন সংগ্রামে উপজেলা বিএনপির দুই গ্রুপের প্রথম সারির নেতাদের “ধরি মাছ না ছুই পানি ” এমন অবস্থানের কারনে ক্ষোভে ফুঁসছে তৃণমূল বিএনপির নেতা কর্মীরা।

One Response

Write a Comment»
  1. আপনার পত্রিকায় প্রথমবারের মত আমার নাম প্রকাশ হবার কারনে আমি গর্বিত। অন্তত আপনারা আমাকে প্রথম সারির নেতা হিসেবে প্রথমবারের মত মর্যাদা দিয়েছেন। ধন্যবাদ।

    বিগত দিনে বহু ঘটনা ও অঘটনের জন্ম দিলেও আমি এই অধম আপনাদের দৃষ্টি আর্কষণে ব্যর্থ হয়েছি। যা হোক আমার অনুপস্থিতি যে আপনাদের দৃষ্টি আকৃষ্ট করতে পেরেছে, তাতে নিজে গর্বিত।

    লিখলেন, তো আমার উপর গোয়েন্দা নজরদাড়ি ও পুলিশি হামলার কথাটি লিখলেন না। ভাই ছোট নেতা বড় হবার ইচ্ছা নাই। যদি পারেন একটু সদয় দৃষ্টিতে দেখবেন।

    মিছিলের সকাল ৮টা থেকে সকলকে ফোন করেছি, কাউকে কাউকে বিছানা থেকে তুলেছি, জানতে চান আসেন প্রমান দিতে পারবো।

    জানি যুব দলের জটিকা মিছিল হবে, তাই মুল দলকে উদ্ভোদ্ধ করেছি কোন কর্মসুচী করা যায় কিনা? তারপর কোন সাড়া পাই নাই।

    জাটকা মিছিল রিপন মিয়া করে না। মুল দল যদি জাটকা মিছিল করে তবে ইজ্জত থাকে না।

    যা হোক, যারা এগিয়ে এসেছেন তাদের ধন্যবাদ। আমি ভাই ছোট মানুষ, আমাকে এত বড় উপাধী দিবার জন্য ধন্যবাদ।

    ভাল থাকবেন আর রাগ করবেন না। দুই বছরের সময় কালে কোন প্রত্রিকায় নাম ছিল না, হঠাৎ দেখে বিদ্যুতের মত ঝাটকা। লাগলো বৈকি?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *