পঞ্চসারে বাল্য বিয়ে ভেঙ্গে দিলেন ইউএনও

মোজাম্মেল হোসেন সজল: মুন্সীগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে বাল্য বিয়ে ভেঙ্গে দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩টায় মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার পঞ্চসার ইউনিয়নের পঞ্চসার গ্রামে নবম শ্রেণীর ছাত্রী রূপালী আক্তারের বাল্য বিয়ে ভেঙ্গে দেয়া হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সদর উপজেলার ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা মুনতাসির জাহান মেয়ের বাড়িতে গিয়ে আদালত বসিয়ে এই বিয়ে ভেঙ্গে দেন। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা (প্রোগাম অফিসার) আলেয়া ফেরদৌসী। রূপালী আক্তার পঞ্চসার ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী।


নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুনতাসির জাহান জানান, মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার পঞ্চসার গ্রামের দুবাই প্রবাসী রূপচান মোল্লার নবম শ্রেণী পড়–য়া কন্যা রূপালী আক্তারের (১৪) সাথে একই উপজেলার রামপাল ইউনিয়নের কাজী কসবা গ্রামের কাজল ভুইয়ার ছেলে সানির (২০) সঙ্গে আগামীকাল শুক্রবার (১৭ ই নভেম্বর) বাল্য বিয়ে হওয়ার দিনতারিখ নির্ধারণ করা হয়। বিষয়টি আমরা জেনে যাওয়ায় বিয়ের দিন এগিয়ে এনে বৃহস্পতিবার ধার্য্য করা হয়। বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা (প্রোগাম অফিসার) আলেয়া ফেরদৌসী ঘটনাস্থলে পৌছে। পরে পুলিশ সদস্যদের নিয়ে গিয়ে স্থানীয় দুই মেম্বারকে স্বাক্ষী রেখে মেয়ের মা ও বাবার কাছ থেকে মুচলেকা নিয়ে বিয়ে ভেঙ্গে দেওয়া হয়। আমাদের উপস্থিতির ঘটনা জেনে বর পক্ষ মেয়ের বাড়িতে আসেননি।

তিনি আরও জানান, আঠারো বছরের আগে মেয়েকে বিয়ে দেয়া হলে দেশের আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।