টঙ্গীবাড়ী উপজেলাবাসীর সেবা করতে চাই -কবির হালদার

আপন সরদার: আগামী টঙ্গীবাড়ী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে সকলের দোয়া ও সমর্থন চেয়েছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক নেতা কবির হালদার।

টঙ্গীবাড়ী উপজেলার দীঘির-পাড় ইউনিয়নের হালদারের পরিবারের সন্তান তিনি। পিতা মৃত মোমতাজ উদ্দীন হালদার। টঙ্গীবাড়ী উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান ও বর্তমান উপজেলা আওয়ামীগের সভাপতি আলহাজ্ব জগলুল হালদার ভূতুর ছোট ভাই তিনি।

ছোট বেলা থেকেই তিনি রাজনীতিতে জড়িত। তাদের পরিবারটিকে আওয়ামীগের একটি অংশ হিসেবেই তিনি মনে করেন।

কবীর হালদার জানান, আওয়ামীগের জন্য তিনি অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছেন,কয়েকবার মিথ্যা মামলায় কারাবন্দীও হয়েছেন। তারপরেও আওয়ামীলীগ থেকে সরে যাননি। দীর্ঘদিন বিক্রমপুর টঙ্গীবাড়ী কলেজের ভিপি ছিলেন। ১৯৮৭ সালে কলেজে প্রবেশ করেই জাতীয়পার্টির মিথ্যা মামলায় কারাবন্দী হন।

এরপর ১৯৯২ সালে লৌহজং কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি করতে গিয়ে সেখানেও বিএনপির মিথ্যা মামলায় কারাবন্দী হন তিনি।

পরপর মিথ্যা মামলা দিয়েও রাজনীতি থেকে তাকে সরাতে ব্যর্থ হয় জাতীয় পার্টি ও বিএনপি।

পরবর্তীতে ১৯৯৪ সালে বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য হন তিনি।

কবির হালদার আরো জানান,আমি ও আমার কয়েকজন সহযোগীদের নিয়ে টঙ্গীবাড়ী উপজেলার ১২ টি ইউনিয়ন ও উচ্চ বিদ্যালয়গুলোতে ছাত্রলীগের কমিটি গঠন করি।
তিনি বর্তমানে কানাডা আওয়ামীগের সহসভাপতি ও সদস্য মন্ট্রিয়ল এসোসিয়েশন অফ কানাডা।

তিনি মনে করেন টঙ্গীবাড়ী উপজেলা ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠায় তার অবদান অনেক। টঙ্গীবাড়ী উপজেলাবাসীর জন্য তিনি কাজ করতে পারলেই নিজেকে স্বার্থক মনে করবেন।

দুর্জয় বাংলা