শ্রীনগরে জ্বীনের বাদশা আটক

শ্রীনগরে জ্বীনের বাদশা আটক। মুন্সীগঞ্জ শ্রীনগরে জ্বীনের বাদশা পরিচয় ধারী এক ব্যক্তিকে আটক করেছে থানা পুলিশ। জানা-যায়, প্রায় এক বছর পূর্বে উপজেলার পূবর্ দেউল ভোগ গ্রামের আব্দুল মালেকের স্ত্রী শিউলি ইসলাম (২৫) এর মোবাইল ফোনে হঠাৎ গত সবে বরাতের দিন গভীর রাতে জ্বীনের বাদশা পরিচয় দিয়ে একটি কল আসে।

জ্বীনের বাদশা পরিচয় ধারী ঐ ব্যক্তি প্রথমে শিউলী ইসলামের নাম জানতে চাইলে, শিউলী ইসলাম নিজের নাম গোপন রেখে কৌশলে তার নাম খুশী বলে জানায়। জ্বীনের বাদশা তাকে হীরা-মনিমুক্তা , সোনাদানা সহ অঢেল সম্পদের মালিক করে বলে বিভোর স্বপ্ন দেখাতে শুরু করেন। এক পর্যায়ে জ্বীনের বাদশা পরিচয় ধারী ঐ ব্যক্তির প্রায় ২০/২৫ টি মোবাইল ফোন নাম্বারে খুশির বিভিন্ন সময় কথাবার্তা হয়। জ্বীনের বাদশা পরিচয়ধারী ব্যক্তি একাধিক কন্ঠে নানা প্রলোভন দেখাতে শুরু করে শিউলী ইসলামকে।

এক সময় ঐ ব্যক্তি শিউলী ইসলামের কাছে বিভিন্ন সময় মোটা অংকের টাকা দাবী করতে থাকে। টাকা না দিলে বিষধর সাপ চালান করে স্বামী ও সন্তানসহ তার পরিবারেরর সবাইকে মেরে ফেলা হবে বলে হুমকি দেয়।। শিউলী জ্বীনের বাদশা পরিচয়ধারী ব্যক্তির ভয়ে তার স্বামী সন্তানের মঙ্গলার্থে জ্বীনের বাদশার দেওয়া ০১৭০৫-৯৭০৪৫০, ০১৮৪৫-০৩৮৭৭১,, ০১৭৩৭-২৯৬৮০১, ০১৭৪৩-৪২২৭৪৫, ০১৯৯০-৩৯৬৭৪৪ বিকাশ নাম্বারসহ আরো অনেক মোবাইল বিকাশ নাম্বারে টাকা পাঠাতে শুরু করেন।

শিউলী ইসলাম জানায়, জ্বীনের বাদশাকে এ পযর্ন্ত প্রায় ৬ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা তিনি পাঠিয়েছেন। আরো টাকা দাবী করলে শিউলী ইসলাম জ্বীনের বাদশা পরিচয়ধারী ব্যক্তিকে মোটা অংকের টাকা দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে কৌশলে তাকে শ্রীনগরে নিয়ে আসেন। জ্বীনের বাদশা শ্রীনগরে শিউলী ইসলাম সাথে দেখা করে টাকা নিতে আসলে শিউলীর আত্নীয়-স্বজন জ্বীনের বাদশা পরিচয়ধারী ব্যক্তিকে আটক করে থানা পুলিশে সোর্পদ করেন। জ্বীনের বাদশা পরিচয়ধারী ব্যক্তি নোয়াখালী জেলার সেনবাগ থানার বাদেকান্দি গ্রামের দলিলুর রহমানের ছেলে মিজানুর রহমান (২৭) ওরফে মাসুদ ওরফে সুমন। এ ব্যাপারে থানায় নিয়মিত মামলার প্রস্তুতি চলছে।

ক্রাইম ভিশন