ভবেরচর ইউনিয়নে হামলায় নিহত ১

গজারিয়া উপজেলার ভবেরচর ইউনিয়নের পৈক্ষারপাড় এলাকায় পুর্ব শত্রুতা ও আধিপত্য বিস্তারের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত মাহবুব আলম(২৫) চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকায় একটি হাসপাতালে শনিবার সকালে মারা গেছেন। গজারিয়া থানার এসআই ও সংশ্লিষ্ট মামলার তদন্ত কর্মকতা মো: আসাদুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এ ঘটনায় স্থানীয় ভবেরচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার সাহিদ মো: লিটনসহ তার দশ অনুসারীর নামে মামলা রুজু হয়েছে গজারিয়া থানায়।

সংশ্লিষ্ট ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ২৬ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার রাতে পৈক্ষারপাড় গ্রামে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত মাহবুব আলমকে(২৫) জুইতার ফলা বিদ্ধ অবস্থায় ভর্তির পর শনিবার ভোরে ঢাকার রেড ক্রিসেন্ট হাসপিটালে মাহবুব আলমের মৃত্যু হয়।

গত বুধবার রাতে আহত মাহবুব আলমের ভাবী রুজিনা বেগম বাদী হয়ে ভবেরচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানসহ তাঁর অনুসারী পৈক্ষারপাড় গ্রামের দশ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ৩ থেকে ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছিল। গজারিয়া থানার ওসি (তদন্ত) প্রাণবন্ধু চন্দ্র বিশ্বাস মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গজারিয়া থানার এসআই মো: আসাদুজ্জামান জানান, এজাহার ভূক্ত আসামী পৈক্ষারপার গ্রামের ইয়াকুব আলীর ছেলে নূরে আলমকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরো জানান, আইন অনুযায়ী মামলাটি হত্যা মামলায় রূপান্তর করা হবে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে আরো জানা যায়, গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের পর থেকে স্থানীয় ভবেরচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনয়িার সাহিদ মো: লিটন ও ৪ নং ওয়ার্ডের সদস্য মোমিনুর রহমান মোল্লার সমর্থকদের মধ্যে আধিপত্য বিস্তার ও পুর্ব শত্রুতা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল।

গজারিয়া থানা সূত্রে জানা যায়, মে মাসে ৪ নং ওয়ার্ডের সদস্যের অনুসারীরা চেয়ারম্যানের কয়েকজন অনুসারীকে পিটিয়ে আহত করলে থানায় মামলা হয়।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, মামলার বিবাদীরা জামিনে এসে এলাকায় আধিপত্য বিস্তারের চেষ্টা করছিল। এর জের ধরে গত মঙ্গলবার রাতে চেয়ারম্যান অনুসারী রুহুল আমিন সরকার,মো: বিল্লালেরসহ কয়েকজন ওয়ার্ড সদস্যের অনুসারী সিদ্দিকুর রহমান সরকারের ছেলে মাহবুব আলমকে(২৫) জুইতার একাধিক ফলা বিদ্ধ করে ও কুপিয়ে আহত করে।

মামলার আসামী হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে গজারিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও বর্তমানে ভবেরচর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সাহিদ লিটন বলেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় আমাকে বিবাদী করা হয়েছে, আমি সংঘর্ষের বিষয়টি পড়ে জেনেছি।

জনকন্ঠ