আড়িয়লে প্রতিমায় দুর্বৃত্তের আগুন

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলায় মন্দিরের প্রতিমায় আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে দুর্গাপূজার জন্য সদ্য নির্মিত দুর্গা প্রতিমা সহ মন্দিরের অন্যান্য প্রতিমাও পুড়ে গেছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে এই ঘটনা ঘটেছে বলে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়ের দুপক্ষের।

মঙ্গলবার ভোর রাতে উপজেলার আড়িয়ল ইউনিয়নের শ্রী শ্রী র্সাবজনীন দূর্গা মন্দিরে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরপরই মুন্সীগঞ্জ পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম, টঙ্গীবাড়ী নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাছিমা আক্তার, পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অজয় চক্রবর্তী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ওই মন্দিরের পূজা কমিটির সভাপতি স্বপন দাস গংদের সাথে পূজামণ্ডপের জমি নিয়ে স্থানীয় সুখময় দাসের দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে মুন্সীগঞ্জ আদালতে উভয় পক্ষ্যের মধ্যে একাধিক মামলা চলমান রয়েছে। এরমধ্যে মঙ্গলবার ভোরে বিরোধপূর্ণ জমিতে অবস্থিত ওই মন্দিরে দুর্গাপূজার জন্য নির্মিত প্রতিমায় আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বত্তরা। এনিয়ে উভয় পক্ষ পাল্টাপাল্টি অভিযোগ তুলেছে।

এ ঘটনায় মন্দিরের বেশ কয়েকটি প্রতিমা পুড়ে গেছে। এনিয়ে কথা বলতে চাইলে, কেউ মুখ খুলতে রাজি হননি।

এব্যাপারে পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি স্বপন দাস জানান, রাতের আধারে কে বা কারা মন্দিরে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। সকালে আমার ছোট বোন নয়ন দাস পূজামণ্ডপ পরিস্কার করতে গিয়ে দেখে কারা যেন প্রতিমাগুলো আগুন দিয়ে পুড়ে ফেলেছে। যারা চায়না পূজা হোক তারাই এ আগুন দিয়েছে।

প্রতিপক্ষ সুখময় দাস জানান, স্বপন দাস গংরা আমার দখলিয় মন্দিরের জায়গাসহ আমার বাড়িটি দখলে নিতে রাতের আধারে তারা মন্দিরে আগুন দিয়ে আমায় ফাঁসানোর চেষ্টা করছে। এরআগে গত রবিবার প্রকাশ্য দিবালোকে তারা আমার দখলিয় বাড়ির ৫০টি গাছ কেটে ফেলেছে। আমি ওই ঘটনায় টঙ্গীবাড়ী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি। এসময় তিনি এই স্থান নিয়ে আদালতে চলমান মামলার কথা জানান।

টঙ্গীবাড়ী থানা ওসি,তদন্ত সেলিম রেজা জানান, ওই মন্দিরে জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে একজন অন্য জনকে ফাঁসানোর জন্য আগুন দিতে পারে বলে আমরা জেনেছি। দু’পক্ষই হিন্দু সম্প্রদায়ের। বিষয়টি অধিকতর তদন্ত করা হচ্ছে। কোন মামলা হয়নি এবং দু’পক্ষের সমঝোতা হয়েছে বলে শুনেছি।

পরিবর্তন