সিরাজদিখানে চাঁদা না পেয়ে হামলায় আহত ১০

কেরানীগঞ্জ উপজেলার কোন্ডা ইউনিয়নের মোল্লার বাজারের গুদারা ঘাটের দক্ষিণ পাড়ে সিরাজদিখান উপজেলার বালুরচর ইউনিয়ন সীমানার চাঁদা না পেয়ে সিএনজি ভাংচুর ও চালকদের উপর দেশীয় অস্ত্র ও চাপাতি নিয়ে অতর্কিত হামলা চালালে অন্তত্ব ১০ জন সিএনজি চালক আহত হয়েছে। গতকাল সকাল সাড়ে ১০টায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় একজন কে আটক করা হয়।

জানা যায়, দীর্ঘ দিন যাবত কেরানীগঞ্জের কোন্ডা ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার (৭,৮,৯ ওয়ার্ড) ময়ফল বেগম ও তার জামাতা জাবের হোসেনের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী বাহিনী গড়ে তোলে। বিভিন্ন সময় চাঁদা দাবি করে আসছে। সিএনজি চালকরা চাঁদা না দিলে গাড়ি চালাতে পারে না। কয়েকদিন ধরে চাঁদার দাবি করে এবং সিএনজি চালকরা টাকা দিতে অস্বীকার করায় এ হামলা চালানো হয়। ৩৫ টি সিএনজি ভাংচুর চালানো হয়।

এসময় সিএনজি চালকরা মহিলা মেম্বারের জামাতা জাবের হোসেন কে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। হামলায় সিএনজি চালক জামির হোসেন (৩০), রাকিব হোসেন (২০), সফিউল্লাহ (৩০), সাইফুল (২৮), আমির আলী (৩১), ফিরু মিয়া (৪৫), মোহাম্মদ হোসেন (৪৫), মো. রাসেল (২২) ও এলাহী (২৮) আহত হয়। এ চাঁদাকে কেন্দ্র করে কিছুদিন আগেও মারামারি হয়।

ময়ফল বেগমের মুঠো ফোনে যোগাযোগ করা হলে একবার ফোন রিসিভ করে বলা হয় এটা ময়ফল বেগমেরদেয়।

সিরাজদিখান থানার ওসি ইয়ারদৌস হাসান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে।

ক্রাইম ভিশন