বজ্রযোগিনীতে প্রবাসীর বিরুদ্ধের স্ত্রীর যৌতুক মামলা

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার বজ্রযোগিনী মালপাড়া গ্রামের এক প্রবাসীর স্ত্রী তার স্বামীর বিরুদ্ধে যৌতুক মামলা করেছেন। এই গ্রামের আজিজুল হক শেখের কন্যা মুক্তা বেগম তার স্বামী শহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে মুন্সীগঞ্জে কোর্টে গত ৯ জুলাই যৌতুক মামলা করেন।

এ সময় মামলায় উল্লেখ করে প্রবাসীর স্ত্রী মুক্তা বলেন, রামশিং গ্রামের আওলাদ মাষ্টারের পুত্র শহিদুল ইসলামের সাথে ২০১০ সালে মুক্তা বেগমের পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয়। তাদের ঘরে দু বছরের একটি পুত্র সন্তানও আছে। বিয়ের দু মাস পরে বিদেশ চলে যান শহিদুল। এর পর থেকে মুক্তার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। সে ও তার সন্তানের দায়িত্বও পালন করেনী। বিদেশ থেকে বিভিন্ন সময় তার শ্বশুর বাড়ি থেকে তিন লাখ টাকা এনে দেওয়ার জন্য চাপ দেন।

গত জুন মাসে শহিদুল দেশে এসে তিন লাখ টাকা চেয়ে তাকে ব্যাপক নির্যাতন করে বলে তার স্ত্রী অভিযোগ করে। জীবন বাঁচাতে সন্তানকে নিয়ে শ্রমিক বাবার বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছেন প্রবাসী শহিদুলের স্ত্রী মক্তা।

এই বিষয়ে আইনের শরনাপন্ন হয়ে মুন্সীগঞ্জ ১ নং আমলী আদালতে একটি যৌতুক ও নারী নির্যাতন মামলা করেন। মামলা নং ২৩৯/১৭। শিশু সন্তান মাহাদি ও তার অধিকার চান মুক্তা বেগম। এই বিষয়ে জানতে চাইলে প্রবাসী শহিদুল ইসলাম হাওলাদারের সাথে যোগাোযোগ করা হলে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। মুক্তার বাবা আজিজুল হক শেখ বলেন, অনেক কষ্টে মেয়েকে বিয়ে দিয়েছি।এখন যৌতুকেরর জন্য আমার মেয়েকে অনেক পাশবিক নির্যাতন করা হয়েছে।আমি এর সুষ্ঠ বিচার চাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *