সিরাজদিখানে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ৪ বসত ঘড় ভস্মীভূত

সিরাজদিখান উপজেলার ইছাপুরা ইউনিয়নের চন্দনধূল গ্রামে গভীর রাতে তিনটি বসতঘর একটি গরুঘড় অগ্নিকান্ডে ভস্মীভ’ত হয়ে ১৫ লাধিক টাকার তি হয়েছে। এ ঘটনায় স্থানীয়রা জানায় , গতকাল রোববার রাত আড়াইটার দিকে চন্দনধূল গ্রামের সাধন চন্দ্র পালের বাড়ির বসত ঘরে বৈদ্যুতিক সর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। আগুন ধরার পরপরই অন্য ঘরগুলিতে আগুন লেগে দাউ দাউ করে জ্বলে উঠে। মহুর্তে আগুনের লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পড়ে। এতে পাশ্ববর্তী নিরঞ্জন চন্দ্র পাল, সুমন পাল ও সুজিত পলের বসত ঘর ও গোয়াল ঘড় পুড়ে যায়। আগুনে নিরঞ্জন চন্দ্র পালের ঘর পুড়ে প্রায় ১০ লাখ টাকা তি হয়। এছাড়া সুিজত পালের আড়াই লাখ টাকা সুমন পালের ২ লাখ টাকা একটি গোয়াল ঘর পুরে ৫০ হাজার টাকা তি সাধিত হয় বলে জানান তি গ্রস্থরা। বাড়িতে আগুন লাগার খবর পেয়ে শ্রীনগড় ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট সিরাজদিখান পৌছালেও বাড়ি না চিনতে পেরে ঘটনাস্থলে না পৌছালে পরে এলাকার লোকজন গিয়ে দেড় ঘন্টা চেষ্ঠা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন।

আগুনে তি গ্রস্থ নিরঞ্জন চন্দ্র পাল জানান, এই ঈদের সময় রেডিমেট জামাকাপড় বিক্রির ঘরের ভিতরে থাকা নগদ দুই লাখটাকা, গরুসহ সকল মালামাল পুড়ে সকলের প্রায় ১৫ লাখ টাকা তি হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ’ সাধন চন্দ্র পাল অভিযোগ করে বলেন সিরাজদিখান উপজেলায় ফায়ার সার্ভিস না থাকায় পাশের উপজেলা থেকে ফায়ার সার্ভিস এসে আগুন নেভাতে দেরিহওয়ায় এতগুলো ঘড় নিমেষেই পুড়ে গেছে।ক্ষতিগ্রস্থ সুজিত পাল বলেন,বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে ধারণা করা হচ্ছে । অগ্নিকান্ডে দুটি পরিবারের দলিলপত্রসহ সর্বস্ব পুড়ে ছাই হয়ে গেছে । সহায় সম্বলহীন পরিবার গুলো এখন খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে।

ক্রাইম ভিশন