দিনের বেলায় বিক্রেতা সেজে চুরি, উদ্বিগ্ন পুলিশ!

মুন্সীগঞ্জে বেশ কয়েকমাস যাবৎ সংঘবদ্ধিত ভাবে অভিনব পদ্ধতিতে বেড়েছে ক্লুবিহীন অর্ধশতাধিক চুরির ঘটনা। এতে করে সাধারণ মানুষের মনে নানা প্রশ্ন জেগেছে ভয়সহ নিরাপত্তা। নতুন নতুন কোলাকৌশল ব্যবহার করে দলবদ্ধভাবে এসব চুরির ঘটেই চলছে।

মুন্সীগঞ্জে শুক্রবার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত দলবদ্ধভাবে সদরের বাগমামুদালীপাড়ার মেডিল্যাব ডায়াগনেষ্টিক সেন্টারের সিসি (ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা) তে ধরা পড়ে একটি বিকাশের দোকান থেকে টাকা চুরির অভিনব পদ্ধতি।

টাকা চুরির অংক কম হলেও চুরি করার অভিনব পদ্ধতি দেখে বিস্মিত সাধারণ মানুষসহ পুলিশ। চুরির ঘটনাটি সদর হাসপাতাল রোদের পাশে বায়েজিদ সার্জারিকাল ম্যাট।

পুলিশ ও ডিবির একাধিক টীম দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে সিসি ক্যামেরা ফুটেজ দেখে তারা অনেকটা উদ্বিগ্ন। ভিডিও ফুটেজ থেকে দেখা যায়, চুরির টীম সদস্য ৮-১০ জন রয়েছে, তরুণ বয়সের ১৮-২৫ বয়সী। তাদের এই কৌশলটি একেবারেই নতুন বলে জানিয়েছে পুলিশ। শুক্রবার বেলা সোয়া ১টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত ১৫ মিনিট ধরে চলে ঘটনাটি। যোহরের নামাজ পড়তে যাওয়ায় বন্ধ দোকানের সামনে কাপড় ও লুঙ্গি বিক্রেতা সেজে তারা কয়েকটি ভাগে অবস্থান করে দোকানটি আড়াল করে রাখে। আরেকটি টীম দোকানের তালা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে। সাধারণ মানুষ লুঙ্গি ও কাপড় বিক্রেতা ভেবেছে। তবে দোকানের মালিক মোঃ সাগর নামাজ পড়তে যাওয়ার আগে ক্যাশ থেকে টাকা নিয়ে যাওয়ায় আড়াই হাজার টাকা চুরি যায়।

এছাড়া ফুটেজে তাদের নিরাপত্তা দিতে কয়েকটি পয়েন্টে চুরির টীমের কয়েকজন সদস্য রাস্তার দুইপাশে মোবাইলে সার্বক্ষণিক নজরদারি রাখে। ১৫ মিনিট চুরির ঘটনা শেষে নির্বিঘ্নে পালিয়ে যায়। টাকার পরিমাণ কম হলেও দিনে দুপুরে এই রকম চুরির ঘটনা সদর রোডের পাশে হওয়াতে ব্যবসায়ী এবং স্থানীয়দের মনে ভয় কাজ করছে। এছাড়া ডায়াগনেষ্টিক সেন্টারে শত শত মানুষের পদচারনা এবং সড়ক দিয়ে বহুল মানুষের যাতায়াতেও চোখে না পড়ায় জনমনে প্রশ্ন উঠেছে।

দোকানের মালিক মোঃ সাগর জানান, আমি যোহরের নামাজ পড়তে যাওয়ার আগে তালা লাগিয়ে মসজিদে যাই। নামাজ শেষে দোকানে এসে দেখি তালা ভাঙ্গার সাথে সাথে ক্যাশও ভাঙ্গা। আমার দোকান থেকে আড়াই হাজার টাকা নেই। পাশের মেডিল্যাব ডায়গনেষ্টিক সেন্টারের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ চেক করে চুরির অভিনব পদ্ধতি দেখে আমি শংকিত ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে জানালে তারা দ্রুত ঘটনাস্থলে আসে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (অপারেশন) সামসুজ্জামান সবুজ জানান, ঘটনা শুনে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছাই। সিসি ক্যামেরায় যাদের ছবি দেখা গিয়েছে তাদের পরিচয় অনুসন্ধানে কাজ চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে। তাদের ছবি প্রিন্ট করে অনুসন্ধান করা হচ্ছে।

বিডিলাইভ