হাইড্রোলিক হ্যামারে কাজ শুরু আজ পদ্মা সেতুতে

কাজী সাবি্বর আহমেদ দীপু: বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী হাইড্রোলিক হ্যামার আজ থেকে পদ্মা সেতু প্রকল্পের পাইলিং কাজে সম্পৃক্ত হবে। ৩০০০ কিলোজল ক্ষমতাসম্পন্ন নতুন এই হ্যামার শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্তের ৪১ নম্বর পিয়ারের অবশিষ্ট ২টি পাইল স্থাপন কাজে যোগ দেবে। এরপর ধারাবাহিকভাবে পিয়ারের কাজ করতে করতে মাওয়া প্রান্তের দিকে এটি এগোতে থাকবে বলে জানা গেছে। গত রোববার থেকে হ্যামারটি পাইলিং কাজে যোগ দেওয়ার কথা থাকলেও বৈরী আবহাওয়ায় প্রমত্তা পদ্মা উত্তাল থাকায় দুই দিন পিছিয়ে আজ থেকে পাইলিং কাজে সম্পৃক্ত হবে।

অন্যদিকে চীন থেকে আনা স্প্যান বা সুপারস্ট্রাকচার ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিলারের ওপর স্থাপন করা হলে চলতি মাসের শেষ দিকে পদ্মা সেতু দৃশ্যমান হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ লক্ষ্য নিয়েই প্রকল্প এলাকায় দেশি-বিদেশি হাজারেরও বেশি শ্রমিক ও প্রকৌশলীদের কর্মযজ্ঞ চলছে।

পদ্মা সেতু প্রকল্পের নির্বাহী প্রকৌশলী (মূল সেতু) দেওয়ান মো. আবদুল কাদের গতকাল সোমবার বিকেলে সমকালকে জানান, জার্মানির মিউনিখে তৈরি বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী ৩০০০ কিলোজল ক্ষমতা সম্পন্ন নতুন হাইড্রোলিক হ্যামারটি ১৩ জুন (আজ) থেকে পদ্মা সেতুর পাইলিং কাজে সম্পৃক্ত হবে। শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্তের ৪১ নম্বর পিয়ারের অবশিষ্ট ২টি পাইল স্থাপন কাজে যুক্ত হওয়ার পর পর্যায়ক্রমে ৩৪, ৩৩, ৩২ ও ৩১ নম্বর পিয়ারের কাজ করবে এবং ধারাবাহিকভাবে পিয়ারের কাজ করতে করতে মাওয়া প্রান্তের দিকে এগোতে থাকবে হ্যামারটি। তিনি আরও জানান, গত ২৭ এপ্রিল নেদারল্যান্ডসের পোর্ট অব রটারড্যাম থেকে রওনা হয়ে এক মাসের মাথায় গত ২৭ মে মংলা বন্দরে পেঁৗছে হ্যামারটি। এরপর গত ৫ জুন মাওয়ার পদ্মা সেতু প্রকল্প এলাকায় এটি আনা হয়।

তিনি আরও জানান, এ মাসের শেষ দিকে ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিলারের ওপর স্প্যান বা সুপারস্ট্রাকচার বসিয়ে দিয়ে দৃশ্যমান করার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে বিষয়টি নির্ভর করছে আবহাওয়া ও নদীর গতি-প্রকৃতির ওপর। তাই মূল সেতুর পিলার স্থাপন কাজের পাশাপাশি মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের কুমারভোগের ওয়ার্কশপে কংক্রিটয়ের ডেস্ক স্লাবের ঢালাই কাজ চলছে। দুটি পিলারের ওপর সুপারস্ট্রাকচার বা স্প্যান স্থাপন শেষে এই স্লাব বসিয়ে দেওয়ার পরই দৃশ্যমান হয়ে উঠবে দেশের সর্ববৃহৎ প্রকল্প পদ্মা সেতু। ইতিমধ্যে সুপারস্ট্রাকচার বা স্প্যান বসানোর প্রস্তুতি হিসেবে ক্রেনের সাহায্যে ট্রায়াল দেওয়া হয়েছে।

সমকাল