শ্রীনগরে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে ধর্ষণের শিকার পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী

ধর্ষককে গ্রেপ্তারের দাবীতে এলাকাবাসীর বিক্ষোভ
আরিফ হোসেন: শ্রীনগরে ধর্ষণের শিকার পঞ্চম শ্রেণীর ওই স্কুল ছাত্রী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসি সেন্টারে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। ওই ছাত্রীর পারিবারিক সূত্র জানায়, পিতৃহীন দরিদ্র ওই ছাত্রীর অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের ফলে এবং গলায় ওড়না পেচিয়ে হত্যার চেষ্টায় এখন মুমুর্ষ অবস্থায় আছে। এঘটনায় ধর্ষকে গ্রেপ্তারের দাবীতে শনিবার সকাল ১০ টার দিকে বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী। পুলিশ ধর্ষককে পালিয়ে যেতে সহযোগীতা করার অভিযোগে তার ভাইকে আটক করেছে।

ধর্ষক আমির হোসেন

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, শুক্রবার দুপুরে বাঘড়া রৌদ্রপাড়া এলাকার বাহের আলী মাদবরের ছেলে তিন সন্তানের জনক আমির হোসেন (৩৫) পঞ্চম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে জোড় করে ধনচে ক্ষেতে নিয়ে ধর্ষণের পর গলায় ওড়না পেচিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। গোঙ্গানীর শব্দে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে ওই ছাত্রীকে গলায় ওড়না পেচানো সহ ধনচে ক্ষেত থেকে উদ্ধার করে। মুমুর্ষ অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসি সেন্টারে স্কুল ছাত্রীটি এখন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। এঘটনায় ওই স্কুল ছাত্রীর দাদা বাদী হয়ে ধর্ষক আমির হোসেন ও তার দুই ভাইকে আসামী করে শ্রীনগর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

এব্যাপারে শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ এসএম আলমগীর হোসেন বলেন, ধর্ষককের পালিয়ে যেতে সহযোগীতা করায় তার ভাই সুলতানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আমির হোসেনকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।