মেডিটেশনের ওপরও কি ভ্যাট বসছে?

এই প্রশ্ন এখন অনেক ধ্যানীর। অতীশ দীপঙ্করের জন্মভূমি মুন্সীগঞ্জ তথা বিক্রমপুরের বজ্রযোগিনীতে অনেক দেশী বিদেশী ধ্যান বা মেডিটেশন করেন। এই ধ্যান চর্চা এখন মুন্সীগঞ্জ জেলাসহ ছড়িয়ে পড়েছে দেশের প্রতিটি জেলা,  উপজেলা,  শহর,  বন্দর এবং গ্রাম-গঞ্জে। ধ্যান করে অনেকই নিজেকে সুস্থ্য রেখেছেন, কর্ম-দক্ষতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। দেশ আত্মপ্রত্যয়ী এবং প্রশান্তির সুবাতাস ছড়াচ্ছে । ধ্যানী এবং জ্ঞানী জাতি হিসাবে পরিচিত বাঙালি আবার আত্মপ্রত্যয়ী হতে শিখছে। কিন্তু‘ সেই ধ্যান চর্চায় আবার ভ্যাট বসতে যাচ্ছে এমন শঙ্কায় বজ্রযোগিনীসহ অনেকর মাঝে ক্ষোভ লক্ষ্য করা গেছে। বুধবার কথা হয় মুন্সীগঞ্জে নিয়মিত মেডিটেশন করা মনিরুজ্জামান দাইয়ানের সাথে। তিনি বলেন, “যদি ভ্যাট বসানোই হয় সেটি হবে আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত। যেই ধ্যানের মাধ্যমে জাতি মূল লক্ষ্যে পৌছতে যা হচ্ছে তা বাধাগ্রস্ত হবে। বিগত বছরগুলোতে যৌক্তিক কারণে প্রত্যাহারের পর আবার কেন ভ্যাট বসানোর কথা আসছে। আর এ থেকে সরকারের কয় টাকা আয় হবে। বরং বদনাম হবে বেশী।”

ধ্যান চর্চা করা মোখলেছা আক্তার শান্তা বলেন, গত ২৭ মে মাসে সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের সাথে বাজেট বিষয়ক আলাপচারিতায় এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, মেডিটেশন সেবার ওপর ভ্যাট থাকছে না। কিন্তু‘ বাস্তবে দেখা গেল, ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেটে ভ্যাট অব্যাহতি প্রাপ্ত পণ্য ও সেবার দীর্ঘ তালিকার কোথাও মেডিটেশন সেবার নাম নেই।

গত ২০১৬-২০১৭ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেটেও মেডিটেশন সেবার ওপর ভ্যাট আরোপ করা হয়েছিল। কিন্তু সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ, স্বাস্থ্য মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, সাবেক পররাষ্ট্র মন্ত্রী ডা. দীপুমনি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের মহিলা সম্পাদিকা ফজিলাতুন্নেসা ইন্দিরা, অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমীন এমিলিসহ বেশ কয়েকজন সাংসদ এর বিরোধিতা করে সংসদের বক্তব্য উপস্থান করেন। পরবর্তীতে অর্থমন্ত্রী বাজেটে মেডিটেশন সেবার ওপর ভ্যাট অব্যাহিতর ঘোষনা দেন।

তারও আগে ২০১৪-২০১৫ অর্থ বছরে অর্থমন্ত্রী নিজেই মেডিটেশন সেবার ওপর থেকে ভ্যাট প্রত্যাহার করেন। সেবার বাজেট বক্তৃতায় তিনি বলেছিলেন, “মেডিটেশন সেবা গ্রহণ করে হতাশাগ্রস্ত অনেক মানসিক ও শারীরিক বাধাগ্রস্ত মানুষ মুক্তির প্রয়াস পায় বলে সেই কারণে মেডিটেশন সেবার ওপর থেকে মূসক প্রত্যাহারের প্রস্তাব করছি”।

২০১৩ সালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন প্রণয়ন করে উচ্চ রক্তচাপ চিকিৎসা নীতিমালা। এতে বলা হয়, চিকিসকগণ যেন স্ট্রেস-আক্রান্ত ও উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের নিয়মিত যোগ, মেডিটেশন, শিথিলায়ন ও দম চর্চার পরামর্শ দেন।

ডা. হিরা আক্তার শেষের খ্যাতনাম কয়েকজন প্রয়াত ও বর্তমান চিকিৎসকের উক্তি উল্লেখ করে বলেন, মেডিটেশন একণ আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। তিনি বলেন, দেশের অগ্রগণ্য চিকিসাবিজ্ঞানীগণ বিভিন্ন সময়ে মেডিটেশন চর্চাকে উৎসাহিত করেছেন। মরহুম জাতীয় অধ্যাপক ডা. নুরুল ইসলাম বলেছিলেন, অস্থির-অশান্ত আধুনিক মানুষের জীবনে প্রশান্তির সুবাতাস আনতে পারে মেডিটেশন, যা পাশ্চাত্যে বিজ্ঞান হিসেবে স্বীকৃত। মরহুম জাতীয় অধ্যাপক ডা. এম আর খানও বলেগেছেন, মেডিটেশন চর্চা করে মানুষ নানা রকম রোগ থেকে মুক্ত হয়েছেন। জাতীয় অধ্যাপক ও বাংলাদেশে হৃদরোগ চিকিৎসার পথিকৃত ব্রিগে. (অব.) ডা. আব্দুল মালিক বলেন, অপারেশন ও এনজিওপ্লাস্টি হৃদরোগের কোন স্থায়ী সমাধান নয়। যুক্তরাষ্ট্রের ডা. ডীন অরনিশ প্রমাণ করেছেন যে, সুস্থ্য জীবন যাপন, স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্যাভ্যাস, কায়িক পরিশ্রম ও ব্যায়াম এবং মেডিটেশনের মাধ্যমে অনেক হৃদরোগী অপারেশন ও এনজিওপ্লাস্টি ছাড়াই সুস্থ্য হয়েছেন।

বজ্রযোগিনী গ্রামের রহমত মিয়া বলেন, “এবারের বাজেটে আইনে স্পষ্ট করে দেয়া হউক মেডিটেশন সেবা ভ্যাটমুক্ত। ভ্যাটমুক্ত সেবার তালিকায় “মেডিটেশন সেবা” উল্লেখ থাকলে মেডিটেশন চর্চকারীরা খুশি হবে। কোন মহল এই নিয়ে কোন সুযোগ নিতে পারবে না। পাশের রামপালের মাহবুব আলম বলেন, “মেডিটেশন চর্চা” ছড়িয়ে দেয়া মানব কল্যাণের অন্যতম একটি কাজ। আর সেই মহৎ কাজে ভ্যাট যুক্ত করা কোনভাবেই সমুচীন হবে না।

জনকন্ঠ