গজারিয়ায় ইউপি সদস্যের অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার ভবেরচর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের সদস্য মো: মমিনুর রহমানের অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী। স্থানীয়রা জানান, পূর্ব শত্রুতার জেরে গত শুক্রবার ফারুক হোসেন (২৭)কে কুপিয়ে জখম করেছে মমিন মেম্বার ও তার সহযোগীরা। এঘটনায় ইউপি সদস্য মমিনকে প্রধান আসামী করে আট জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়েরের পর দুই জনকে আটক করেছে পুলিশ।

অভিযোগ রয়েছে, স্থানীয় গ্রাম্য সালিশে নিজের ইচ্ছেমত রায় দেন তিনি। তার রায় মানা না হলে চালানো হয় নির্যাতন শুধু তাই নয় জোর পূর্বক অন্যের জায়গা দখল, গাছের সাথে বেধে নিরপরাধ মানুষকে নির্যাতনসহ অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

মমিন মেম্বারের অত্যাচারের শিকার পৈক্ষার পাড় গ্রামের নুরুল আমিন সরকার জানান, বিনা কারণে তাকে সম্প্রতি জোরপূর্বক রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে মারধর করে মমিন মেম্বার। তাকে মেরে ফেলার উদ্দেশ্যে বস্তা বন্দী করে পানিতে ফেলে দেওয়ার সময় এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে।

মমিন মেম্বারের নির্যাতনের শিকার কালু মিয়া জানান, বিনা অপরাধে তাকে গাছের সাথে বেধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করে মমিন।

মমিন মেম্বারের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের বিষয়ে জানতে চাইলে ভবেরচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাহিদ মোহাম্মদ লিটন জানান, তার কর্মকান্ডে তিনি নিজেও বিব্রত। তার অনৈতিক কাজে সায় না দেওয়ায় তাকে হুমকি দিয়েছে সে।

এ বিষয়ে জানতে মমিন মেম্বারের বাড়ীতে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। তার ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বারে একাধিক বার কল করা হলে বন্ধ পাওয়া যায়।

গজারিয়া থানার অফিসার্স ইনচার্জ মো: হেদায়তুল ইসলাম ভূঞা জানান, দুই আসামীকে আটক করা হয়েছে । বাকীদের আটকে আমাদের অভিযান অব্যহত রয়েছে । আসামী যে ই হোক আইনের উর্ধ্বে কেউ নয়।

গজারিয়া নিউজ