নাঈম আশরাফ কে যেভাবে আটক করা হয়

রাজধানীর বনানীর হোটেল রেইনট্রিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রী ধর্ষণ মামলার অন্যতম আসামি নাঈম আশরাফ ওরফে হাসান মোহাম্মদ হালিমকে মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের আত্মীয়ের বাড়ি থেকে আটক করেছে পুলিশ। 

সেখানে আত্মগোপনে থাকা অবস্থায় মোবাইল ট্রেকিংয়ের মাধ্যমে ঢাকা গোয়েন্দা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

মুন্সীগঞ্জ লৌহজং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আনিছুর রহমান জানান, আমাদের কাছে এতটুকু খবর দেওয়া হয়েছিল নাঈম আশরাফ চন্দ্রের বাড়ি এলাকায় আত্মগোপন করে আছে। ঢাকা থেকে গোয়েন্দা পুলিশের একটি টিম এসে সেখানে অভিযান চালায়।

অভিযানে জেলা পুলিশের কোন সদস্য অংশ নেয়নি। বুধবার রাত পৌনে ৯টার দিকে নাইম আশরাফের আত্মীয় আকুব আলীর বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করে ঢাকার উদ্দেশে নিয়ে যায়।

মুন্সীগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম পিপিএম জানান, মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে আত্মগোপনে ছিল নাঈম আশরাফ। ঢাকা থেকে আসা গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা যদি সহায়তা চায় তার জন্য আমরা প্রস্তুত ছিলাম।

ঢাকা গোয়েন্দা পুলিশ কিভাবে নাঈম আশরাফকে খুঁজে পেল তা জানিনা। তবে ধারণা করছি মোবাইল ট্রেকিংয়ের মাধ্যমে তার সন্ধান মিলে। সে কবে থেকে এখানে আত্মগোপন করে আছে কিংবা কিভাবে এখানে আসল তা আমাদের জানা নেই।

পরিবর্তন