পদ্মায় নিখোঁজ তানিয়ার সন্ধান মেলেনি এখনো

মুন্সীগঞ্জের লৌহজং এলাকার পদ্মায় গোসল করতে নেমে নিখোঁজ তানিয়া আক্তারের (১৫) লাশ গতকাল রবিবারও উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। এর আগে শনিবার দুপুরে উপজেলার গাঁওদিয়া ইউনিয়নের শামুরবাড়ি এলাকায় পদ্মা নদীতে গোসল করতে নেমে মা, বোনসহ তাদের চারজনকে স্রোত ভাসিয়ে নিয়ে যায়। এর মধ্যে দুজনকে জীবিত ও একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। আর তানিয়া নিখোঁজ থাকে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, সন্তানদের নিয়ে ঢাকা থেকে শুক্রবার লৌহজংয়ের শামুরবাড়ি গ্রামে এক আত্মীয়ের বাড়ি কুলখানি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আসেন নাছিমা বেগম (৪৭)। শনিবার দুপুরে বাড়ির পাশে পদ্মা নদীতে গোসল করতে নামলে নাছিমা বেগম, তাঁর দুই যমজ মেয়ে তানিয়া ও সোনিয়া এবং ভাগ্নি যূথীকে (১৩) স্রোত ভাসিয়ে নিয়ে যায়। এ সময় তাঁদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে সোনিয়া ও যূথীকে জীবিত উদ্ধার করে। পরে বিকেলে নদী থেকে নাছিমা বেগমের লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে তানিয়ার কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। পরে পাশের উপজেলা শ্রীনগর থেকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল এসে খোঁজাখুঁজি করেও তানিয়ার সন্ধান পায়নি।

লৌহজং থানার ওসি আনিচুর রহমান জানিয়েছেন, স্থানীয় লোকজন ও ডুবুরি দল রবিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত পদ্মায় খোঁজাখুঁজি করেও তানিয়ার সন্ধান পায়নি।

কালের কন্ঠ

Comments are closed.