শ্রীনগরে নিখোঁজ সন্তানের সন্ধান দাবীতে এক অসহায় মায়ের আহাজারি

আরিফ হোসেন: শ্রীনগরে ২ মাস ধরে নিখোঁজ সন্তানের সন্ধান দাবীতে আয়োজিত মানববন্ধন এক শোকার্ত মায়ের আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠে। চোখের পানি সামলাতে না পেরে মানববন্ধনে অংশ নেওয়া অনেকেই হাউ মাউ করে কেদেঁ উঠলে এক হৃদয় বিদারক পরিবেশে তৈরি হয়।

ঢাকার সদর ঘাটের লাকী এন্টার প্রাইজ থেকে নিখোঁজ দোকান কর্মচারী কমল দাস (২৫) এর নিখোঁজের ঘটনায় বুধবার বেলা এগারটার দিকে উপজেলার তন্তর ইউনিয়নের রুসদী এলাকার লোকজন এ মানববন্ধন কর্মসূচীর আয়োজন করে। ঢাকা-শ্রীনগর-নওপাড়া সড়কের রুসদী উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে একাধিক ইউপি সদস্য সহ বিভিন্ন বয়সের প্রায় সহ¯্রাধিক নারী-পুরুষ অংশ নেয়। তারা নিখোজঁ দোকান কর্মচারী কমল দাসের সন্ধ্যান দাবী করে এবং দোকান মালিক লৌহজং উপজেলার বৌলতলী এলাকার দেলোয়ার শিকদারের উপযুক্ত বিচার দাবী করেন।

মানববন্ধনে অংশ গ্রহন কারীরা জানান, রুসদী গ্রামের গোপাল দাসের দুই ছেলের মধ্যে বড় ছেলে কমল দাস ঢাকার সরদরঘটারে লাকি এন্টরাপ্রাইজে কর্মচারী হিসাবে ১২ বছর ধরে কাজ করে আসছিল। ৬ মাস পূর্বে সে দোকানের মালিক দেলোয়ার শিকদারকেরর দোকানে কাজ করতে অস্বীকৃতি জানায়। এতে দেলোয়ার শিকদার ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এ নিয়ে দুজনের মধ্যে মাঝে মাঝে কথা কাটা কাটি হতো। গত ৯ মার্চ কমল দোকান থেকে নিখোঁজ হয়। দুই দিন পর দেলোয়ার কমলের বাড়িতে ফোন করে জানায় তাকে পাওয়া যাচ্ছে না। এঘটনায় কমলের পরিবারের লোকজন কোতোয়ালী থানায় সাধারণ ডাইরী করতে গেলে উল্টো তাদের সাথে খারাপ অচরণ করে পুলিশ। কয়েক দিন পর দেলোয়ার জানায় কমলের সন্ধ্যান পাওয়া গেছে। ৫০ হাজার টাকা দিলে তাকে ছাড়িয়ে আনা সম্ভব।

এর পর কমলের অসহায় বাবা-মা সুদে টাকা এনে দেলোয়ারের কাছে ৫০ হাজার টাকা তুলে দেয়। ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ার পর দেলোয়ার কয়েকটি তারিখ দিলেও কমলকে ফিরিয়ে না দিয়ে তাল বাহানা শুরু করে। নিরুপায় হয়ে কমলের বাবা গোপাল দাস বাদী হয়ে গত ২৩ এপ্রিল ঢাকার মূখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে দেলোয়ার শিকদার ও আজাহার দপ্তরীকে আসামী করে মামলা দায়ের করে । মামলা নং ৪৯২/২০১৭। মামলা করেও কোন সুফল পাওয়া যাচ্ছে না বলে কমলের পরিবার দাবী করেন। উল্টো মামলা উঠিয়ে নেওয়ার জন্য কমলের পরিবারকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে।

এব্যাপারে দেলোয়ার শিকদারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তার দোকান কর্মচারী আজাহার জানায়, দেলোয়ার শিকদার বর্তমানে চীনে অবস্থান করেছেন। লাকী এন্টার প্রাইজ সরদঘাটের বিক্রমপুর মার্কেটে অবস্থিত। ওই মার্কেটের সাধারণ সম্পাদক হাজী মহসীন খাঁন বলেন, কমল দাসের নিখোঁজের বিষয়ে আমাদেরকে কিছুই জানানো হয়নি।

Comments are closed.