টিভি নাটকের দর্শকদের বাংলা চ্যানেলমুখী করার চ্যালেঞ্জ নিয়ে নাটক প্রযোজনায় নেমেছে মুন্সীগঞ্জের বিরহী মোক্তার

জসীম উদ্দীন দেওয়ান : বলার অপেক্ষা রাখেনা বাংলাদেশের নাটকের জনপ্রিয়তা এক সময় ছিল আকাশচুম্বি। সে নাটকের জনপ্রিয়তাতো দুরের কথা, এদেশের দর্শকরা এখন আর দেশি চ্যানেলে নাটক দেখবে এমন অভ্যাস যেন তারা হারাতেই বসেছে। বাংলা নাটকের ঐতিহ্য ফিরিয়ে এনে মহামূল্যবান দর্শকদের দেশি চ্যানেলমূখী করার প্রত্যয় নিয়ে নাটক প্রযোজনায় নেমেছে মুন্সীগঞ্জ সদরের পঞ্চসার ইউনিয়নের সন্তান, প্রয়াত সংগীত শিল্পী আবুল কালাম আজাদের ছোট ভাই বিরহী মোক্তার।

বিরহী মোক্তার


ভালো গল্প, ভালো মানের অভিনয় শিল্পী এবং গুনি পরিচালকদের সমন্বয় করে বিরহী মাল্টি মিডিয়া নামে প্রযোজনা ব্যানার করে কাজে নেমেছেন এই প্রযোজক। জসীম উদ্দীন দেওয়ান এর রচনায় “কলা পাতার ঘর” নাটক দিয়ে ১৪ সালের নভেম্বর মাসে প্রথম প্রযোজনা ও অভিনয়ের আত্মপ্রকাশ করেন বিরহী মোক্তার। এরপর তিনি আর থেমে নেই। নিজের প্রযোজনায় ইতোমধ্যে ৮ টি নাটক ও টেলিফিল্ম বিভিন্ন চ্যানেলে প্রচারিত হয়। যার মধ্যে মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের ২০১৬ সালের বর্ষসেরা টেলিফিল্ম “আর্টিষ্ট মজনু খাঁ” এই প্রযোজকের ব্যাতিক্রম একটি অবদান।

এছাড়া ২ টি মিউজিক ভিডিও এ্যালবামও প্রযোজনা করেন বিরহী। মোবাইল বা ইউটিউব এর নাটক বলে খ্যাত ২টি শর্ট ফিল্মেও অবদান রাখেন তিনি। আগামী ঈদুল ফিতরে “গল্পটা তোমারই” নামের একটি চমৎকার টেলিফিল্ম প্রচারিত হবে বিরহী মোক্তারের প্রযোজনায়। বিরহী শুধু প্রযোজনায়ই ভূমিকা রাখছেননা, অভিনয় করেছেন ৩৫ টি নাটক ও টেলিফিল্মে। মোক্তার জানান, দেশি নাটকের দর্শকদের ফিরিয়ে আনার বিষয়টিতে তিনি এখনো সফল নয়।


তবে তাঁর চেষ্টা অব্যাহত থাকবে বলে দৃঢ়তার সাথে জানান তিনি। স্রোতের গতি ঘুরাতে সময় লাগে। সে জন্য তাঁর প্রচেষ্টা থেমে থাকবেনা। মুন্সীগঞ্জের ডিঙ্গাভাঙ্গার সন্তান বিরহী মোক্তার, বড় ভাই আবুল কালাম আজাদ (বিরহী আজাদ) এর অনুপ্রেরণায় সংস্কৃতি জগতে আসা। নাট্য জগতের পাশাপাশি বাংলাদেশ নাট্যাঙ্গনের সংগীত বিভাগের শিক্ষকতার দায়িত্ব পালন করে আসছেন বিরহী মোক্তার।