জুয়া আর মাদকে সয়লাব রামপাল

জুয়া আর নানা প্রকারের মাদকে সয়লাব মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার রামপাল। সন্ধ্যার পর চিহ্নিত কিছু স্পটে বসে মাদকের ভাসমান ব্যবসা ও জুয়ার আসর। স্থানীয়দের অভিযোগ দলীয় নেতাকর্মিরা রহস্যজনক কারণে রয়েছে নির্বিকার।

এর আগে একবার এখানে জেলা পুলিশ সুপার এর উদ্যোগে অভিযান চালিয়ে একাধিক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। তারপর থেকে মাদক ও জুয়ার আসর কমলেও আবার তা বেড়ে গেছে। বিভিন্ন সূত্রে জানা যায় রামপালের সিপাহীপাড়া মাদক বিক্রয়ের গুরুতপূর্ণ স্থান হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। এছাড়াও ধলাগাও বাজার, পূর্ব দেওসার স্কুল মাঠ, দক্ষিন দেওসার, হাতিমারা আমতলা, সুখবাসপুর এবং কোধালদোয়া দালালপাড়া, পানহাটাসহ বিভিন্ন স্পটে নানান কৌশলে বিক্রয় করা হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের মাদক। বিভিন্ন সময় ইউনিয়নের একাধিক জায়গায় বসছে জুয়ার আসর।

অভিযোগ রয়েছে স্থানীয় দলীয় নেতৃবৃন্দেরর দাপটে এই কার্যক্রম করছে একটি চক্র। তেমন কোন পদক্ষেপ না থাকায় মাদকের সহজলভ্যতায় এখানকার স্কুল-কলেজপড়ুয়া ছাত্র ও যুব সমাজ নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে। বেপরোয়া ও বখাটে হয়ে উঠছে এসব কিশোর এবং তরুণরা।

রাস্তাঘাটে স্কুল-কলেজের মেয়েসহ নারীদের বিভিন্নভাবে উত্ত্যক্ত করছে। সম্প্রতি রামপাল হাইস্কুলের এক শিক্ষার্থীকে ছুড়িকাঘাতে আহত করে মাদকাসক্ত এক তরুণ। এছাড়াও সিপাহীপাড়ায় নানান অনিয়ম করে যাচ্ছে মাদকের সাথে জড়িত একটি সিন্ডিকেট। নিত্যদিন ঘটছে বিভিন্ন ধরনের ঝগড়া ও মারামারি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রামপাল ইউপি চেয়ারম্যান বাচ্চু শেখ বলেন, মাদকের ছড়াছড়ি বন্ধে প্রশাসনসহ আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। মাদক বন্ধে জনসচেতনতা গড়ে তোলার আহবান করেন তিনি।

রামপাল ইউপি মহিলা মেম্বার মর্জিনা বেগম বলেন, মাদক ও জুয়ার আসর দেশকে ধ্বংসেরর দিকে ধাবিত করছে। তাই প্রশাসন, জনপ্রতি ও জনগনের এগিয়ে আসতে হবে মাদক নির্মূলে।

স্থানীয় রেজাউল ইসলাম বলেন, প্রতিনিয়ত রাসপালের বিভিন্ন ব্যক্তি মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে তাদেরকে আইণে আনা হলে মাদক কমবে। রামপালকে মাদক ও জুয়া মুক্ত করতে মুন্সীগঞ্জের পুলিশ সুপারের সহায়তা চান এখানকার সুশীল সমাজ।

ভোরের বিডি

Comments are closed.