সিরাজদিখানের জনি “সাকুরা” বারে নিহত

রাজধানীর পরীবাগের সাকুরা বারে নিহত যুবকের পরিচয় মিলেছে। তার নাম জনি (৩০)। সোমবার দুপুর ২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে গিয়ে জনির লাশ শনাক্ত করেন তার বড় ভাই নয়ন।

নয়ন সাংবাদিকদের জানান, রাজধানীর কল্যাণপুর এলাকার ১১ নম্বর রোডের একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন জনি। শাহবাগে ফুলের ব্যবসার সঙ্গে জড়িত ছিলেন তিনি। কোনো দোকান না থাকলেও সকালে ফুল কিনে সারাদিন বিক্রি করতেন। শাহবাগ এলাকার ২১ নম্বর ওয়ার্ড যুবদলের প্রার্থী হওয়ার কথা ছিল তার।

নয়ন জানান, তাদের গ্রামের বাড়ি মুন্সিগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান উপজেলার রাজনগরে। জনি ঢাকায় বড় হয়েছেন।

এর আগে রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে জনিকে রক্তাক্ত অবস্থায় রূপসী বাংলা হোটেল মোড় এলাকা থেকে উদ্ধার করেন শাহবাগ থানার এসআই রায়হান উদ্দিন। পরে তাকে ঢামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

পরে পুলিশ জানতে পারে, সাকুরা বারের কর্মচারীরা জনিকে নৃশংসভাবে পিটিয়ে হত্যা করেছে। এ অভিযোগে বারের ব্যবস্থাপক জুয়েলসহ অন্তত ৩০ কর্মচারীকে আটক করে পুলিশ। তবে সোমবার বিকেল পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা হয়নি।

শাহবাগ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবু জাফর জানিয়েছেন, নিহতের ভাই মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। মামলা হয়ে গেলে আটকদের গ্রেফতার দেখানো হবে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, নিহত জনির মাথায় ও মুখে গুরুতর জখমের চিহ্ন ছিল। নাক ও মুখ দিয়ে রক্ত পড়ছিল এবং মুখের বিভিন্ন অংশ থেতলানো ছিল। ভারি কোনো বস্তুর আঘাতে এসব হয়েছে বলে ধারণা চিকিৎসকদের।

যমুনা নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *