মিরকাদিমে ‘ক্যাফে অাড্ডা’র যাত্রা শুরু

জাফরুল অালম: স্বাস্থ্যসম্মত, টাটকা ও ভিন্নস্বাদের খাবারের প্রতিশ্রুতি নিয়ে চালু হয়েছে ‘ক্যাফে অাড্ডা’। মুন্সীগঞ্জের মিরকাদিম পৌর এলাকায় নূরপুর রোডের প্রধান সড়কে সদ্য চালু হওয়া ক্যাফেটি শুরুতেই স্থানীয়দের মধ্যে বেশ সাড়া জাগিয়েছে।

পহেলা বৈশাখে চালু হওয়া দেশি-বিদেশি হরেকরকম খাবারের সমাহার নিয়ে ‘ক্যাফে অাড্ডা’ নামের এই ক্যাফে’টি মিরকাদিম পৌরবাসীকে ভালো খাবারের প্রতিশ্রুতি দিয়েই চালু করেছে। ক্যাফের ভেতরে প্রবেশ করলেই চোখে পড়বে চোখ জুড়ানো শিল্পশৈলী। ভেতরের মনোরম পরিবেশ খাদ্য প্রেমিক-প্রমিকাদের রসনার সঙ্গে দিবে শিল্পের আনন্দ। তেমনটাই মনে হলো ক্যাফে প্রবেশ করেই।

প্রতিদিনকার নিয়মিত টাটকা খাবারের পাশাপাশি ক্যাফে অাড্ডা’র স্পেশাল মেন্যুগুলো ভোজন রসিকদের স্বাদে এক নতুন ভুবনে নিয়ে যাবে বলেই বিশ্বাস করেন সংশ্লিষ্টরা।

ক্যাফে কর্তৃপক্ষ শুরুতে সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১টা। অাবার বিকেল ৪ টা থেকে রাত ১১টা অবধি ক্যাফে খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এখানে রয়েছে খাবারের হরেক আইটেম। সাথে বিকালের নাস্তায় বৈচিত্রতো অাছেই। আর মেনু’তে রয়েছে তেতুলের জুস, লেমোনেড, বাংডুং ৩ ফ্লেবারের মেঙ্গো, রোজমেরি, ব্লুবেরিসহ নানা অাইটেম।

এছাড়া ৩ ধরনের বার্গার, শরমা, পিজা, সেন্ডুইস, চিকেন পাফ, চিকেন প্যাটিস, ব্রেড বাটার পুডিং, চিজ কেক আর মাফিন, চক্লেট কেকতো অাছেই।

ক্যাফেটি পৌরবাসীর রসনায় দেবে তৃপ্তি। এমনটাই জানিয়েছেন ক্যাফে’র সত্ত্বাধিকারী মোবাশ্বের হোসাইন মানিক।

গরমের অারামে রয়েছে বিভিন্ন জুসের সাথে কাঁচা অামের টাটকা জুস। পাশাপাশি কোল্ড ও হট কফিতো অাছেই।

জানা যায়, চমৎকার পরিবেশ ও খাবারের মান বিবেচনায় ক্যাফেটি শুরুতেই বেশ সুনামের সহিত এলাকাবাসীর অাস্থা কুঁড়াতে সক্ষম হচ্ছে। চালু হবার কিছু দিনের মধ্যেই বেশ সাড়া জাগিয়েছে ক্যাফেটি। শুধু স্থানীয়দের মধ্যেই নয়, দূর দুরন্ত থেকেও ভোজনপটুরাও ছুটে অাসছেন বলে জানা যায়।

হরেক রকমের মুখরুচি খাবারের সমাহার অত্র এলাকায় তেমন একটা না থাকায় রসনাবিলাসীদের দৃষ্টি এখন ক্যাফে অাড্ডার দিকে।

অাগত অতিথিদের ইন্টারনেট সুবিধা দিতে রয়েছে ফ্রি ওয়াইফাই ব্যবস্থা। সেই সাথে বিনোদনের জন্য ডিস সংযোগ দিতেও ভুুুল করেনি ক্যাফ কর্তৃৃপক্ষ।

ক্যাফের স্বত্বাধিকারী মানিক বলেন, টাটকা ও স্বাস্থ্যসম্মত খাবারের প্রতিশ্রুতি দিয়েই চালু করেছি ‘ক্যাফে অাড্ডা’। তিনি জোর দিয়েই বলেন, যে কোন মূল্যেই হোক। এলাকাবাসীকে মানসম্মত খাবার উপহার দিব।

ভবিষ্যতে খাবারের অাইটেম বাড়ানো হবে কিনা জানতে চাইলে মানিক বলেন, ভোজনদের চাহিদা অনুযায়ী দিনেদিনে অারো নতুন নতুন খাবারের অাইটেম বাড়ানো হবে। যা ভোজনরসিকদের সামনে হাজির করার প্রতিশ্রুতিও দেন তিনি।

দৈনিক নওরোজ