সিরাজদীখানে প্রবাসীর স্ত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু

মুন্সীগঞ্জ সিরাজদীখানে জ্যোথী দাস (২২) নামের এক গৃবধূর রহস্যজনক মৃত্যুু হয়েছে। সিরাজদীখান থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে লাশ মুন্সীগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালের মর্গে ময়না তদন্তের জন্য নিয়ে যায়। শুক্রবার দুপুরে উপজেলার জৈনসার ইউনিয়নের ভাটিমভোগ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত জ্যোথী দাস সিরাজদীখান উপজেলার রশুনীয়া ইউনিয়নের খিলাপাড়া গ্রামের সৌদি প্রবাসী কাজল দাসের স্ত্রী ও একই উপজেলার জৈনসার ইউনিয়নের ভাটিমভোগ গ্রামের কৃষক বিশ্বনাথ দাসের মেয়ে।

নিহত জ্যোথী দাসের মা কল্পনা দাস জানান, গত শুক্রবার দুপুর বারটায় আমরা বাড়িতে ফিরে আসলে ঘরের দরজা ধাক্কা দেয় কিন্তু কেউ না খোলায় দেবরের ছেলে সুমনকে দিয়ে ঘড়ের দরজা ভাঙ্গলে দেখি সে তার ঘরে আড়ার সাথে ওড়না বেধে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে আছে। আমরা স্থানীয় চেয়ারম্যান,মেম্বার ও পুলিশকে খবর দিলে সিরাজদিখান থানা থেকে পুলিশ দরজা ভেঙ্গে তার গলায় ফাঁস দেয়া অবস্থায় দেখি জ্য্যোথী মৃত।

স্থানীয় এলাকার লোকজনের কাছে জানা যায়, যে তার সাথে পারিবারিক কোন কোলাহল ছিল না। তবে কি করনে তার এমন আতœহত্যা ঘটিয়েছে তার কারন এখনো কারো জানা নেই। তবে ধারণা করা হচ্ছে তার প্রবাসী স্বামীর সাথে ফোন আলাপে কোন কিছু ঘটেতে পারে। তবে তা এখনো পরিষ্কার নয়। এসআই মোঃ আব্দুল আজিজ জানান, প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি একটি আত্মহত্যা তবে ময়নাতদন্তের রির্পোট আসলে হত্যা না আত্মহত্যা বলা যাবে। সিরাজদিখান থানার ওসি (প্রশাসন) মোঃ ইয়ারদৌস হাসান বলেন,পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ মর্গে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রির্পোট আসলে পরবর্তী পদপে নেয়া হবে।

ক্রাইম ভিশন