শ্রীনগর থানার পরিদর্শকের বিরুদ্ধে জবির অভিযোগ

মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগর থানার পরিদর্শক (এসআই) রহমতের বিরুদ্ধে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে সরকারি দায়িত্ব পালনে অবহেলা ও রাষ্ট্রের সম্পত্তি ক্ষতিসাধনের অভিযোগ করেছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) কর্তৃপক্ষ। পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজির কাছে চিঠির মাধ্যমে এ অভিযোগ জানান জবি প্রক্টর ড. নুর মোহাম্মদ।

মঙ্গলবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর।

চিঠিতে বলা হয়, গত ১২ এপ্রিল আনুমানিক বিকেল ৫টায় শ্রীনগর শনবাড়ী এলাকায় জবি শিক্ষক ও শিক্ষার্থী পরিবহন বাসে করিম গ্রুমের মাটি কাটার ভেকু/ইসকেভেটর দিয়ে গাড়ির বাম পাশের মাঝখানে আঘাত করে ক্ষতি সাধন করে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন শ্রীনগর থানার সাথে যোগাযোগ করলে সেখানে পুলিশ আসে। কিন্তু কর্মরত এসআই মো. রহমত আলী বিশ্ববিদ্যালয়ের গাড়ির চালকের কাছে গাড়ির কাগজপত্র দেখতে চাইলে অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ড্রাইভার মো. আতিকুর রহমান বলেন যে, গাড়ির কাগজপত্র বিশ্ববিদ্যালয়ে সংরক্ষিত আছে। এ কথা শোনার সঙ্গে সঙ্গে এসআই ক্ষিপ্ত হয়ে আতিকুরকে চড়-থাপ্পর মারতে থাকে এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানার ওসিকে ফোনের মাধ্যমে অবগত করা হয়। সরকারি দায়িত্ব পালনে অবহেলা, রাষ্ট্রের সম্পত্তি ক্ষতিসাধন ও নির্বিচারে সরকারি কর্মচারীকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা বেআইনি কাজ বলে প্রতীয়মান হয়।

ওই ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সিয়াম দ্য রিপোর্টকে বলেন, আমরা ভেবেছিলাম পুলিশ এলে ঘটনাটি সুরাহা হবে। কিন্তু বিধি বাম। সুরাহা তো দূরের কথা এসআই রহমত আলী ঘটনা উস্কে দিয়ে এলাকাবাসী ও করিম গ্রুপের কর্মচারীদের মারমুখী করে তোলেন। সেই সাথে জবির বাসচালক আতিককে বেধর চড়-থাপ্পর মারেন। বাসের যদি কাগজপত্র না থাকে তবে রাষ্ট্রীয় আইনে মামলা করতে পারতেন পুলিশ। কিন্তু এসআই রহমত আলী কোন আইনে নিরপরাধ ব্যক্তির শরীরে হাত তুলতে পারেন না। আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল ছিলাম বলেই নিজেদের সংবরণ করেছিলাম।

দ্য রিপোর্ট