সিরাজদীখানে ইস্টার সানডে উদযাপিত

ভাবগম্ভীর পরিবেশ ও আনন্দ আয়োজনের মধ্য দিয়ে সিরাজদীখানের শুলপুরে উদযাপিত হয়েছে খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের দ্বিতীয় বৃহত্তম উৎসব পবিত্র ইস্টার সানডে। ইস্টার সানডে উপলক্ষে উপাসনালয়সহ বাসা-বাড়ি সাজিয়েছেন খ্রিস্টধর্মাবলম্বীরা। জেলার একমাত্র গির্জা সিরাজদীখানের কেয়াইন ইউনিয়নের শুলপুর গ্রামে অবস্থিত ‘সাধু যোসেফ গির্জায়’ রোববার সকালে সমবেত প্রার্থনায় কামনা করা হয়েছে বিশ্বকল্যাণ। প্রার্থনা পরিচালনা করেন সাধু যোসেফ গির্জার ফাদার শ্যামল লরেন্স র‌্যাগো।

ফাদার শ্যামল লরেন্স র‌্যাগো বলেন, ‘ঊনপঞ্চাশ দিনের রোজা পালন শেষে এই দিনে বিশ্বের সব খ্রিস্টভক্তের জীবনে বয়ে আনে নির্মল আনন্দ ও শান্তি। গুড ফ্রাইডেতে বিপথগামী ইহুদিরা তাকে ত্রুক্রশবিদ্ধ করে হত্যা করেছিল। মৃত্যুর তৃতীয় দিবস অর্থাৎ রোববার তিনি মৃত্যু থেকে জেগে উঠেছিলেন। মৃত্যুকে জয় করে যিশু সকল ক্লান্তি দূর করার জন্য আবারও মানুষের মাঝে ফিরে আসেন। এ দিনটিকেই আমরা ইস্টার সানডে হিসেবে উদযাপন করি।’

প্রার্থনার পাশাপাশি চলে ধর্মীয় সঙ্গীত পরিবেশনা, প্রসাদ বিতরণ ও আলোচনা সভা। আলোচনা সভায় পবিত্র ইস্টার সানডের গুরুত্ব ও মানবজীবনে তার প্রয়োগ সম্পর্কে গুরুগম্ভীর দিকনির্দেশনামূলক আলোচনা করা হয়। প্রবাসী মাইকেল রোজারিও জানান, ‘যিশুখ্রিস্ট তিন দিন মৃত থাকার পর বছরের এই দিনে পুনরায় জীবন ফিরে পান। সেই থেকে খ্রিস্টধর্মের অনুসারীরা দিনটিকে যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপন করে।’

সমকাল

Comments are closed.