শ্রীনগরে এক গ্রুপের ২০ জনের জামিন ২ জন জেল হাজতে

আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের পাল্টাপাল্টি মামলা
আরিফ হোসেন: শ্রীনগরে স্বাধীনতা দিবসে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের পাল্টা-পাল্টি কর্মসূচীকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনায় ৮২ জনকে আসামী করে শ্রীনগর থানায় পাল্টাপাল্টি মামলার ঘটনায় এক গ্রুপের ২০ জনকে জামিন ও ২ জনকে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে আদালত। সোমবার মুন্সীগঞ্জের জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট বাকী বিল্লাহ এর আদালত এ আদেশ দেন।

এর আগে গত ৩০ মার্চ রাতে স্থানীয় এমপি গ্রুপের পক্ষে উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সিনিয়র সহসভাপতি শাহজাহান দেওয়ান ও গোলাম সারোয়ার কবির গ্রুপের পক্ষে সরকারী শ্রীনগর কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম লিমন বাদী হয়ে পাল্টা-পাল্টি মামলা দুটি দায়ের করেন। শ্রীনগর থানার মামলা নং ২৪ ও ২৫। মামলায় এমপি গ্রুপ ২৯ জন ও কবির গ্রুপ ৫৩ জনকে আসামী করে। সোমবার কবির গ্রুপের ২২ জন আদালতে জামিনের জন্য গেলে জেলা ছাত্রলীগ নেতা আসিফ ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মো ঃ সুজন এর জামিন নামঞ্জুর করে ২০ জনের জামিন মঞ্জুর করে আদালত।

মামলার এজাহারে উভয় পক্ষই জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমান ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ছবি সংবলিত ব্যানার ফেষ্টুন ছিনিয়ে নেওয়া ও আগুন ধরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ করেন। তাছাড়া দুই পক্ষ গোলাগুলির অভিযোগ করলেও পুলিশ বলছে এরকম কোন তথ্য এখনও পর্যন্ত তাদের কাছে নেই। তবে বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখা হচ্ছে। শ্রীনগর থানার এসআই নুরুল কাদির সৈকত দুটি মামলারই তদন্ত করছেন।

গত ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের পাল্টা-পাল্টি কর্মসূচীকে কেন্দ্র করে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও গোলা-গুলির ঘটনা ঘটে। এসময় মুন্সীগঞ্জ-১ আসনের এমপি সুকুমার রঞ্জন ঘোষ ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন। প্রায় এক ঘন্টা ব্যাপী চলা সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ শতাধিক রাউন্ড ফাকা গুলি ও কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে। সংঘর্ষে দুই গ্রুপের অন্তত ১৫ জন আহত হয়। সংঘর্ষের সময় এম রহমান শপিং কমপ্লেক্স ও আশপাশের দোকানে ব্যাপক ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। আকস্মিক এ ঘটনায় শ্রীনগর বাজার ও আশপাশের এলাকা জুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পরে।

পরে স্থানীয় এমপি সুকুমার রঞ্জন ঘোষ স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেছিলেন, শ্রীনগরে আওয়ামী লীগের কোন গ্রুপিং নেই এবং কোন সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেনি। এর চারদিন পরই এমপি গ্রুপ ও গোলাম সারোয়ার কবির গ্রুপের পাল্টাপাল্টি অভিযোগে শ্রীনগর থানায় মামলা রেকর্ড হয়।

Comments are closed.