একই মামলার আসামি বিএনপি ও ছাত্রলীগ নেতা

মঈনউদ্দিন সুমন: মুন্সীগঞ্জে ডিশ ব্যবসাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা হয়েছে। এতে সদর উপজেলার চরকেওয়ার ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ও জেলা বিএনপির উপদেষ্টা হাকিম মিজি এবং জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি ফয়সাল মৃধাসহ ছয়জনকে আসামি করা হয়েছে।

গত ১৬ মার্চ এ মামলা হয়। বিষয়টি জানাজানি হয় গতকাল শুক্রবার।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, গত ১৬ মার্চ চরকেওয়ার ইউনিয়নের বাঘাইকান্দি গ্রামের আয়েশা আক্তারের বাড়িতে ভাঙচুর ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আয়েশা আক্তারসহ পরিবারের পাঁচজন আহত হন। পরে আয়েশা আক্তার বাদী হয়ে বিএনপির সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান হাকিম মিজিকে হুকুমের আসামি এবং জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সাল মৃধাকে ১ নম্বর আসামি করে মামলা করেন।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, ছাত্রলীগ সভাপতি ফয়সাল মৃধা ও আয়েশা আক্তারের মামা আবদুর রাজ্জাক একসঙ্গে ডিশ ব্যবসা করতেন। গত ১৬ মার্চ বেলা ১১টার দিকে বিএনপির সভাপতি হাকিম মিজির হুকুম ও ছাত্রলীগ সভাপতির নেতৃত্বে ১০-১২ জন সন্ত্রাসী এই হামলা চালায়। এ সময় ফয়সাল মৃধা পিস্তল দিয়ে দুটি গুলি করেন এবং আয়েশা আক্তারের ঘরে ভাঙচুর করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সাল মৃধা বলেন, ‘মামলার বিবরণে হাকিম মিজি হুকুমের আসামি। হাকিম মিজি কে? তিনি বিএনপির সভাপতি। তাঁর নির্দেশে ছাত্রলীগের সভাপতি এ ঘটনা ঘটাতে পারে?’

‘এটা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র এবং এ মামলা মিথ্যা ও বানোয়াট। ঘটনার দিন আমি ছিলাম শ্রীনগরের ছাত্রলীগের একটি অনুষ্ঠানে।’

মুন্সীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইউনুচ আলী জানান, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। আইন সবার জন্য সমান। তাই যে কেউ আইন ভঙ্গ করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এনটিভি

Comments are closed.