ওয়ারীতে গোলাগুলির ঘটনায় আহত ২, অস্ত্র লুট

রাজধানীর ওয়ারীতে পূর্ব শত্রুতার জেরে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ, গোলাগুলি ও অস্ত্র লুটের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওয়ারীর দিলীপের মাঠ সংলগ্ন বনগ্রাম রোডে এই ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পক্ষের দুইজন গুরুতর আহত হয়েছেন। তারা হলেন, মুন্সীগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য মো. সাইদুর রহমান খান (৪০) এবং আসাদুজ্জামান জনি (৩৯)। আহতদের মধ্যে আসাদুজ্জামান ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। একই হাসপাতালে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন সাইদুর রহমানকে রাতেই স্কয়ার হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

সাইদুর রহমানের স্ত্রী শিউলি রহমান জানান, জাপান প্রবাসী সাইদুর রহমান খান সপরিবারে পুরান ঢাকার বনগ্রাম এলাকায় থাকেন। তাদের গ্রামের বাড়ী মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ার ইমামপুরে। আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রাথী সাইদুর রহমান সম্প্রতি মুন্সীগঞ্জ জেলা পরিষদ নির্বাচনে সদস্য পদে নির্বাচিত হন। গতকাল সন্ধ্যায় পরিবার-পরিজন নিয়ে গ্রামের বাড়ি যাচ্ছিলেন তারা। সন্ধ্যা ৭টার দিকে ওয়ারীর দিলীপের মাঠ সংলগ্ন বনগ্রাম রোডে আসতেই স্থানীয় সন্ত্রাসী দীলিপের ভাই আবেদ এবং মিথুন ও জনিসহ তাদের ৮/১০জন সহযোগী সাইদুরদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় সাইদুরকে পেছন দিক থেকে রড দিয়ে আঘাত করে রাস্তায় ফেলে বেধরক পেটায় এবং সাইদুরের স্ত্রী ও ভাতিজিকেও মারধর করে তারা। হামলায় সাইদুর মাথায় গুরুতর আহত হয়েছেন। হামলার পর সাইদুর রহমানের লাইসেন্স করা পিস্তল ও শর্টগান ছিনিয়ে নিয়ে গেছে সন্ত্রাসীরা। পরে তাদের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে সাইদুরকে প্রথমে একটি বেসরকারি হাসপাতালে নেয়। পরে তাকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে রাতে তাকে স্থানান্তর করা হয় স্কয়ার হাসপাতালে।

আহত সাইদুর রহমানের বড় বোন রহিমা আক্তার পলি জানান, হামলাকারীরা তাদের বড় ভাই তৌহিদ হত্যা মামলার আসামী। গতকাল সাইদুর রহমানকেও হত্যার পরিকল্পনা নিয়ে তার ওপর হামলা চালায় ওই সন্ত্রাসীরা।

এদিকে ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন জনি জানান, সন্ধ্যায় সাইদুর রহমান তার মামা আবেদের জামার কলার চেপে ধরে তাকে মারধর করে। এসময় তাকে (মামা) ছাড়িয়ে আনতে গেলে সাইদুর গুলি চালালে আহত হন তিনি।

ওয়ারী থানার ওসি মো. জেহাদ হোসেন জানান, ১০-১৫ বছর আগে আসাদুজ্জামান জনির মামা আবেদের সঙ্গে সাইদুর রহমানের মামলা-মোকদ্দমা ছিল। পূর্ব বিরোধের জের ধরে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে সংঘর্ষ বেঁধে যায় উভয় পরে মধ্যে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে একটি শটগান উদ্ধার করার পাশাপাশি আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ঘটনায় জড়িতদের আটকের চেষ্টায় অভিযান চলছে।

আমাদের সময়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *