মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের রোল মডেল

শাখাওয়াত হোসেন: মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামিলীগের আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর চীফ সিকিউরিটি অফিসার, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মুন্সীগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় তাকে গণসংবর্ধনা দেওয়া হয়। ১৯ মার্চ রোবরার বিকালে জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয়ের সামনে গণসংবর্ধনায় প্রধান অতিথির বক্তেব্যে বানিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এম.পি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী হলো উন্নয়নের রোল মডেল । তার নেতৃত্বে বাংলাদেশর উন্নয়ন বিশ্বের কাছে উন্নয়নের রোল মডেল।

তিনি আরো বলেন, আমাদের উপরে যে হামলা নির্যাতন চালানো হয়েছিল তা পৃথিবির ইতিহাসে বিরল। বিশ্বের শ্রেষ্ট্র নেতা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ২০০৪ সালের ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলার নিক্ষেপ করা হয়েছে হাওয়া ভবন থেকে। ২০০৮ সালে বিপুল সংখক ভোটে ২য় বারের মত শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। ক্ষমতায় এসে বঙ্গবন্ধুর হত্যার খুনিদের বিচার দ্রুত কার্যকর করা হয়েছে। যুদ্ধাপরাধীদের মধ্যে অনেকেরই ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে। যে বাংলাদেশকে নিয়ে আগে তুচ্ছ করা হত।

বাংলাদেশ ছিল বিএনপির সময় তলাবিহীন ঝুঁড়ি আজ সেই বাংলাদেশ শেখ হাসিনার নেতেৃত্বে আজ হয়েছে উন্নয়নের রোল মডেল। গ্রাম শহর হয়ে গেছে বিশ্বের কাছে গ্রামীন অর্থনীতি প্রশংসা পাওয়ার যোগ্য। রাস্তাঘাট, বিদ্যুৎ,গ্যাস, বৈদেশিক বানিজ্য, শিক্ষাসহ অনেক ক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। এই নির্বাচন কমিশনারের অধীনেই হয় ২০১৮ সালের ডিসেম্বরের শেষে নয়তো ২০১৯ সালের জানুযারি মাসের নির্বাচন কমিশন তারিখ দিবে। সেই নির্বাচনে আওয়ামিলীগকে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় আনার আহব্বান জানান। এতে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক, স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মৃনাল কান্তি দাস, আওয়ামিলীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ফজিলাতুন্নেছা ইন্দিরা এম.পি। সাবেক হুইফ, মুন্সীগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, মুন্সীগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য বাবু সুকুমার রঞ্জন ঘোষ, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আনিছুজ্জান আনিছ, পৌর মেয়র হাজী ফয়সাল বিপ্লব প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও গণসংবর্ধনা উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক আলহাজ্ব শেখ লুৎফর রহমান ।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, গণসংবর্ধনা উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাভোকেট সোহানা তাহমিনা, জেলার ৬ টি উপজেলার আওয়ামিলীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে দুপুর থেকে বিভিন্ন উপজেলা জেলার নেতাকর্মীরা সংবর্ধনা স্থলে আসতে শুরু করেন। এই সংবর্ধনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক লোকের সমাগম ঘটে। জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে নেতা-কর্মি ছাড়াও সাধারণ মানুষের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে।

ওয়েব বিডি

Comments are closed.