অবৈধভাবে রাস্তার উপর ভবন নির্মাণ॥ অবরুদ্ধ ৫০টি পরিবার

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার বজ্রযোগিনী ইউনিয়নের রামশিং গ্রামে ব্যক্তি মালিকানাধীন ও জনসাধারনের চলার পথ দখল করে বহুতল ভবন নির্মান কাজ চালাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয় সুত্রে জানাযায়, রামশিং গ্রামের মো: গফুর মুন্সী নামের এক প্রভাবশালী ভূমিদস্যু মাহমুদা আক্তার অঞ্জুর গংদের পৈত্রিক সম্পত্তিতে অবৈধভাবে ভবন নির্মান করছেন। শুধু তাই নয় গ্রামের আরো ৫০ টি পরিবারের যাওয়া আসার একমাত্র রাস্তাটিও দখলে নিয়েছে। এতে করে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে প্রায় ৩০০ শতাধিক এলাকাবাসী। এ নিয়ে ভুক্তভোগী পরিবারগুলো প্রতিবাদ করিলেও আসলে নেয়নি ভবন নির্মাণকারীরা চক্র। জমির প্রকৃত মালিকের ওয়ারিস মাহমুদা আক্তার ও জামিলা ওরফে নিলা অভিযোগ করে বলেন, মো: গফুর মুন্সী গং জায়গাটি কিনে নিয়েছে বলে দাবি করছে।

অথচ এ নিয়ে এলাকায় একাধিকবার শালিশ বৈঠক হলেও তারা কোন বৈধ কাগজপত্র দেখাতে পারেনি। এটা আমাদের পৈত্রিক সম্পত্তি। জায়গাটি সি.এস , আর.এস ও এসএ ৩০ শতাংশ জায়গা আমাদের নামে নামজারি রয়েছে। পরে বাধ্য হয়ে আমরা মুন্সীগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে একটি পিটিশন মামলা দায়ের করি। যাহার পিটিশন মামলা নং- ৮৬/২০১৭ । উক্ত মামলা আদালত আমলে নিয়ে মুন্সীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে মামলাটি নিস্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত শান্তি সৃংখলা বজায় রাখাসহ নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন। কিন্তু ভূমি দস্যু চক্র আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কাজ চালাচ্ছে এবং আমাদের নানাভাবে ভয়বীতি ও হুমকি প্রদান করে আসছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, যেখানে ভবনটি নির্মাণ করা হচ্ছে তার আগে রয়েছে একটি সরকারী ছোট ব্রিজ। আর ব্রিজের প্রবেশ মুখটির সামনেই ভবনের পিলার । ভবনটি উত্তর এবং পশ্চিম পাশের বাসিন্দাদের যাতায়াতের রাস্তাটি পুরোটাই ভবনের সীমানা প্রাচীরের ভিতরে পড়েছে। এতে করে এলাকার বাসিন্দারা বিকল্প পথে বাড়ী ফিরছে তাতেও রয়েছে নানা শংকা। জায়গাটি যে সর্ব সাধারনের চলার পথ ছিল সেটার কালের স্বাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে ব্রিজটি।

স্থানীয় বাসিন্ধরা অভিযোগ করে বলেন, পাবলিকের হাঁটা এবং ব্যক্তি মালিকানা জায়গা দখল করে প্রভাবশালী চক্র ভবন নির্মাণ করছে। এতে করে আমরা অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছি। স্কুল পড়–য়া ছেলে – মেয়েরা স্কুলে যেতে পারছেনা। অনেকা বন্দী অবস্থায় জীবন যাপন করিতেছি। মুন্সীগঞ্জ সদর থানা সুত্রে জানাযায়, গত- ২-০৩-১৭ ইং তারিখে সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক মো: সাইফুল ইসলাম সবুজ ঘটনাস্থলে গিয়ে উভয় পক্ষের লোকদের ডেকে কোর্টের আদেশ মেনে চলার জন্য নোটিশ দিয়ে আসেন। কিন্তু প্রতিপক্ষ আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে নির্মাণ কাজ চালিয়েই যাচ্ছে। ঘটনাস্থলে গিয়ে অবৈধভাবে ভবন নির্মাণের কারন জানতে চাইলে দখলদার মো: গফুর মুন্সী বলেন, আমরা কোর্টে কাগজ দেখাব। পুলিশ এসেছিল চলে গেছে । পুলিশ আমাদের কাজ বন্ধ করতে বলেনি ।তাই চালাচ্ছি নির্মাণ কাজ।

মুন্সীগঞ্জ সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) মো: সাইফুল ইসলাম সবুজ বলেন, আমরা শান্তি সৃংখলা বজায় রাখার জন্য এবং কাজ বন্ধ রাখার জন্য বলেছি। কিন্তু আদেশ অমান্য করে কেউ নির্মাণ কাজ চালিয়ে বিসৃংখলা করিলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

চমক নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *