শ্রীনগরে আওয়ামী লীগ নেতার বাড়িতে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা ধনাঢ্য জামাতার!

আরিফ হোসেন: শ্রীনগরে দাম্পত্য কলহের জের ধরে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে এক ধনাঢ্য ব্যবসায়ী। মারাত্মক আহত অবস্থায় রিয়াদ খান (৩০) নামে ওই ব্যবসায়ীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ণ ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। রবিবার বেলা ১১ টার দিকে উপজেলার রাঢ়িখাল ইউনিয়নের বালাশুর এলাকায় ওই ব্যবসায়ীর শশুড় বাড়িতে এঘটনা ঘটে। এঘটনায় রিয়াদের শশুড় রাঢ়িখাল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাসু মোল্লা বাদী হয়ে শ্রীনগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ সাহিদুর রহমান নিশ্চিত করেছেন।

হাসু মোল্লা ও স্থানীয়রা জানান, চার বছর আগে ভাগ্যকূলের ঐতিহ্যবাহী খান পরিবারের ফিরোজ খানের ছেলে ঢাকার ব্যবসায়ী রিয়াদ খানের সাথে তার মেয়ে ইয়াসমিন সুলতানা মলি (২২) এর বিয়ে হয়। তাদের সংসারে মারজুক খান নামে তিন বছরের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। রিয়াদ খান মাদকাসক্ত। একারণে তার মেয়ের সাথে প্রায় সময়ই পারিবারিক কলহ লেগে থাকত। ফলে দুই মাস আগে মলি তার বাবার বাড়িতে চলে আসে এবং রিয়াদ খানের সাথে আর সংসার করবেনা বলে জানায়।

রবিবার সকালে মলি তাদের বাড়িতে একা ছিল। এসুযোগে রিয়াদ খান কোমল পানীয়ের বোতলে কেরোসিন নিয়ে ওই বাড়িতে প্রবেশ করে এবং মলির সামনে নিজের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুণ ধরিয়ে দেয়। এসময় মলির চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে আগুন নিভিয়ে ফেলে। আগুনে রিয়াদের শরীরের নিন্মাংশ পুরে যায়। মলির শরীরেরও কিছু অংশ আগুনে পুড়ে গেছে।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়,ভবনের কয়েক স্থানে আগুনের চিহ্ন রয়েছে। রিয়াদকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। হাসু মোল্লা আরো জানান, রিয়াদ এর আগেও ধানমন্ডির বাসায় হারপিক পান করে আতœহত্যার চেষ্টা করে। ওই ঘটনায় সে ১৫ দিন হাসপাতালে ভর্তি ছিল। বালাসুর চৌরাস্তায় রিয়াদের বহুতল মার্কেট নিমার্নের কাজ চলছে।

একারনে সে প্রায় সময়ই ঢাকা থেকে বালাশুর চলে আসতো এবং কারনে অকারনে তার মেয়েকে জ্বালাতন করত। এতো কিছুর পরও তিনি রিয়াদের আত্মীয় স্বজনের আশ্বাষের অপেক্ষায় ছিলেন। রিয়াদের চাচাতো বোনের জামাতা কাজী শাহাদাত ভাগ্যকূল ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান। তাছাড়া রিয়াদের আপন দাদা বারী খান ও দুই চাচা লিয়াকত খান ও একুল খান ওই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান।রিয়াদ প্রভাবশালী পরিবারের সন্তান হওয়ায় তার বিরুদ্ধে মলি ও তার পরিবারের লোকজন মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছিলনা বলে মলির বাবা জানায়। কোন উপায় না দেখে এঘটনায় তিনি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ সাহিদুর রহমান জানান, হাসু মোল্লা একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। তবে রিয়াদের পরিবারের কারো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

Comments are closed.