পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে ছাত্রলীগ নেতাদের চাঁদাবাজি

মোজাম্মেল হোসেন সজল: মুন্সীগঞ্জ পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ছাত্রলীগ নেতাদের চাঁদাবাজির অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে জনপ্রতি ৫শ’ টাকা করে চাঁদা নেওয়া হয়।

শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন, মুন্সীগঞ্জ পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের অষ্টম পর্বের ইন্ড্রাস্ট্রিয়াল অ্যাটাচমেন্টের ৪টি ডিপার্টমেন্টের ৮ শিফটের প্রায় ৩ শ’ জন শিক্ষার্থীকে সরকার ১৩ হাজার টাকা করে বৃত্তি প্রদান করে। এ বৃত্তির টাকা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের মাঝে মঙ্গলবার বিকেল ৩টার পর ভাইভা পরীক্ষা শেষে বিতরণ শুরু করেন। এ সময় কলেজ ছাত্রলীগ প্রতি শিক্ষার্থীর কাছ থেকে ৫শ’ টাকা করে জোরপূর্বক নিয়ে নেয়। পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট কর্তৃপক্ষ কেটে রাখেন ২-৩শ’ টাকা করে।

মঙ্গলবার প্রায় দেড়শ’ জন শিক্ষার্থীকে বৃত্তির টাকা প্রদান করা হয়। বাকি বৃত্তিপ্রাপ্তদের মাঝে টাকা বিতরণ করার কথা রয়েছে বুধবার।

এ ব্যাপারে মুন্সীগঞ্জ পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদুল হাসান তারিফ জানান, তারা জোর করে কারও কাছ থেকে টাকা নেননি। কলেজের পুরস্কার বিতরণ ও কনসার্ট উপলক্ষ্যে কেউ কেউ খুশি হয়ে টাকা দিয়েছেন। তবে, কবে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান ও কনসার্ট হবে-প্রশ্ন করা হলে সময় নির্ধারণ করা হয়নি বলে জানান।

জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ আহম্মেদ পাভেল জানান, ছাত্রলীগ কোনো চাঁদাবাজির প্রতিষ্ঠান নয়। এ কাজ করে থাকলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মুন্সীগঞ্জ পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. জহিরুল ইসলাম জানান, তারা শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে কোনো টাকা নেননি। ছাত্রলীগের চাঁদা নেওয়ার বিষয়টি তার জানা নেই বলে জানান তিনি।

পূর্ব পশ্চিম

Comments are closed.