একজনই প্রধান শিক্ষক: জেলা দুই

মুন্সীগঞ্জে শহরের পৌরসভার পাচঁগরিয়া কান্দি এলাকার আমীরুল হক পৌর বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগ উঠেছে।সরেজমিনে ও ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে জানাযায়, প্রধান শিক্ষক মো: মোশারফ হোসেন তিনি সপ্তাহে ১দিনের বেশী স্কুলে আসে না।

এ বিষয়ে কারন জানতে চাওয়া হলে জানাযায় মো: মোশারফ হোসেন নারায়নগঞ্জ জেলার পূর্ব জালকুড়ী উচ্চ বিদ্যালয় এর প্রধান শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন। তিনি দুইটি জেলার দুইটি স্কুলের প্রধান শিক্ষক এটা মেনে নিতে পারছেনা মুন্সীগঞ্জের অভিবাবকরা। কথা উঠেছে শিক্ষার মান নিয়ে ও। বিগত সময়ে পাশের সংখ্যা ভালো ছিল মনে করেন অভিবাবকরা।

অভিবাবকরা আরো জানায় জে,এস,সি ও এস এস সি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ফি আদায় সহ অন্যান্য চাদাঁ আদায়ের অনিয়মের করে আসছেন দীর্ঘদিন যাবত।

এ দিকে শিক্ষার্থী ও অভিবাবকরা জানায়, জেলা প্রশাসক ও উর্ধতন কর্তৃপক্ষের দূষ্টি আকর্ষনে বিদ্যালয়ের লেখা পড়ার মান উন্নয়ন হবে বলে মনে করেন সবাই।এ বিষয়ে আমীরুল হক পৌর বালিকা বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি নুরউজ্জামান জানায়,আমি বছরের বেশী সময় প্রর্যন্ত বিদেশে থাকি এ বিষয়টি আমার জানা ছিল না তবে বিষটি আমি খতিয়ে দেখবো।

এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা অফিসার আনন্দময় ভূমিক জানান, আমীরুল হক পৌর বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: মোশারফ হোসেনকে কিছু দিন আগে কারন দশা নোটিস পাঠিয়েছি নোটিসের জবাব তিনি দেয়নি। এ বিষয়ে আমাদের র্উধতন কর্মকর্তাদের সাথে এ বিষয়ে আলোচনা করা হবে। তবে তার বিরুদ্ধে তদন্তকরে সঠিক ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

অপর দিকে আমীরুল হক পৌর বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: মোশারফ হোসেনকে মোবাইল ফোনে ফোন করা হলে তিনি ফোনটি ধরেননি।

বিডিলাইভ

Comments are closed.