সিরাজদিখানে স্কুলছাত্র হত্যার মূল আসামি গ্রেপ্তার

মঈনউদ্দিন সুমন: মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার স্কুলছাত্র বাহার আলিফ (১৪) হত্যার মূল আসামি হৃদয় বেপারীকে (১৮) গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ শনিবার সকালে ঢাকার কেরানীগঞ্জের মুরাদপুর এলাকা থেকে হৃদয়কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত সুইচ গিয়ার ছুরি এবং আলিফের স্যামসাং গ্যালাক্সি মোবাইল ফোনটিও উদ্ধার করা হয়েছে।

আলিফ উপজেলার লতব্দী ইউনিয়নের রামকৃষ্ণদী গ্রামের সৌদি আরবপ্রবাসী বাদল শেখের ছেলে এবং শেখ মীয়ার হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র ছিল। গতকাল শুক্রবার দুপুর থেকে সে নিখোঁজ ছিল। পরে সন্ধ্যায় বাড়ির পাশ থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ওই দিনই চারজনকে আটক করা হয়। পরে রাতে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়।

আটক হৃদয় সিরাজদিখানের একটি বেকারিতে কাজ করত। তাঁর খালার বাড়ি রামকৃষ্ণদী গ্রামে।

সিরাজদিখান থানার উপপরিদর্শক (এসআই) হানিফ সরকার জানান, মূল আসামি হৃদয়কে সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায়, আলিফ বেশকিছু দিন আগে হৃদয়কে ৩০০ টাকা দিয়েছিল একটি সুইচ গিয়ার ছুরি কেনার জন্য। কিন্তু হৃদয় সেটি আর কিনে দেয়নি। পরে আলিফ এ নিয়ে হৃদয়ের খালার কাছে বিচার দেয়। খালা তখন হৃদয়কে বকা দেয়।

এ নিয়ে আলিফের ওপর হৃদয়ের ক্ষোভ জমে ছিল। এর মধ্যেই বিদেশ থেকে আলিফের কাছে স্যামসাং গ্যালাক্সি মোবাইল ফোন আসে, যা দেখে হৃদয়ের লোভ জাগে এবং সেই ফোনটি নিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা করে।

এসবের কারণেই আলিফকে খুন করা হয় বলে ধারণা করছে পুলিশ। আটক হৃদয়কে আগামীকাল মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হবে বলে জানান এসআই।

এনটিভি

Comments are closed.