শ্রীনগরে মৎস আড়ৎদারকে অস্ত্র দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ: মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল

আরিফ হোসেন: শ্রীনগরে এক মৎস আড়তদারকে প্রকাশ্য জনসন্মুখে গ্রেপ্তারের ২ দিন পর ঢাকা থেকে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার দেখানোর প্রতিবাদে ডিবি পুলিশের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছে স্থানীয়রা। পরে শ্রীনগর থানা পুলিশের দুটি টিম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মানববন্ধনের ব্যানার-ফেষ্টুন ছিনিয়ে নিয়ে তা পন্ড করে দেওয়ার চেষ্টা করলে মানববন্ধনে অংশ গ্রহনকারী সহ¯্রাধিক নারী পুরুষ বিক্ষোভ মিছিল করে।বুধবার সকাল দশটার দিকে ঢাকা-দোহার সড়কের জাহানাবাদ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ডিবি পুলিশের কাছে আটক মৎস আড়ৎদার মো: আলমের ভাই বাঘড়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আ: সালাম মানববন্ধনে অংশ নিয়ে জানান, তার ভাইকে গত ২৯ নভেম্বর সকাল ৭ টার দিকে বাঘরা বাজারের মৎস্য আড়তে মাছ বিক্রি সময় ঢাকা ডিএমপির ডিবি পুলিশ সদস্যারা সাদা পোষাকে আটক করে। ডিবি পুলিশ আড়তে উপস্থিত চার-পাচশ লোকের উপস্থিতিতে আলমকে তল্লাশী করে কিছু না পেয়ে তাকে টেনে হিচরে গাড়ীতে তুলে । তবে কি মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হচ্ছে তা না বলায় অন্যান্য মৎস আড়তদাররা বাধা দেয়। এসময় তাদেরকে ডিবি পুলিশ অস্ত্র বের করে ভয় দেখায়।

আলমের পরিবারিক সূত্র জানায়,আলমকে ধরে নিয়ে যাওয়ার দুই দিন পর তারা জানতে পারেন ১ ডিসেম্বরে ৩১ নবাব ইউসুফ রোডস্থ আল্লাহর দান ট্রেডিং এন্ড ট্রান্সপোর্ট এজেন্সির সামনের রাস্তা থেকে বিদেশী পিস্তল ও ৩ রাউন্ড গুলিসহ আটক করে কোতয়ালী থানায় ২(১২)১৬ নং মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। এ ঘটনায় আলমের পরিবার সহ স্থানীয়রা হতবাক হয়ে পরে। মানববন্ধনে অংশ নেওয়া কয়েকজন প্রবীন জানান, এমন হলে পুলিশের উপর কারো আস্থা থাকবেনা। রাস্তার দুপাশে প্রায় অর্ধ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে অংশ গ্রহন কারীরা আলমের মুক্তির দাবীতে স্লোগান দিতে থাকে। পরে পুলিশ এসে ব্যানার-ফেষ্টুন কেড়ে নিয়ে মানববন্ধনটি পন্ড করে দেওয়ার চেষ্টা করলে উপস্থিত নারী-পুরুষ বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠে।

আ: সালাম আরো জানান, দুই বছর আগে তার ছেলে বাঘরা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহিনকে গুলি কের হত্যা করে প্রতিপক্ষ। তারাই এখন পুলিশকে ব্যবহার করে বিভিন্ন মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে আমাদের পরিবারটিকে নিশ্চিহ্ন করার পায়তারা করছে।