সিরাজদিখানে বয়রাগাদীর রাস্তা দীর্ঘদিন ধরে বেহাল দশা

মোঃ রুবেল ইসলাম: উপজেলার বয়রাগাদী ইউনিয়নের একমাত্র রাস্তাটি প্রায় দেড় যুগ ধরে বেহাল দশায় এলাকাবাসীর দূর্ভোগ। খানাখন্দ আর স্থানে স্থানে বড় বড় গর্ত হওয়ায় এ সড়ক দিয়ে যাতায়াতে প্রতিনিয়িত চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে শিক্ষার্থীসহ এলাকার হাজারও মানুষের।

প্রায় ১০ কিলোমিটার রাস্তায় দেড় যুগে কোন সংস্কার না হওয়ায় রাস্তাটির অস্তিত্ব হুমকির মুখে। বয়রাগাদী, গোবরদী, বড় পাউলদিয়া, বাহেরঘাটা, ছোট পাউলদিয়া, ভুইরা গ্রামসহ ইউনিয়নের ৫ হাজার মানুষ প্রতিনিয়ত যাতায়াত করার প্রধান মাধ্যম এ রাস্তা।

সরোজমিনে দেখা যায়, বয়রাগাদী ইউনিয়নের বড় পাউলদিয়া গ্রাম থেকে ভুইরা গ্রামের রাস্তার শেষ সীমানা পর্যন্ত বেহাল দশা সৃষ্টি হয়েছে। পুরো রাস্তার জাগায় জাগায় দেখা দিয়েছে ভাঙন আর বড় বড় গর্ত। রাস্তাটির খানা-খন্দক, গর্ত, ভাঙ্গন এত বেশী পরিমাণ যে যান চলাচলে প্রতিনিয়ত দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। গুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তাটি এখনই জরুরী ভিত্তিত্বে সংস্কার করা না হলে কিছু দিন পরে রাস্তাটির অস্তিস্ত খুাঁজে পাওয়া যাবে না। এখান কার স্থানিয় অটোরিকশা চালক জসিম জানান, শুধু মাত্র ভুইরা গ্রামের রাস্তাটি সংস্কার হলেও আমরা অর্ধশতাধিক অটোরিকশা চালকরা গাড়ি চালিয়ে পরিবার নিয়ে কোন রকম খেঁয়ে বেঁচে থাকতে পারতাম। বাহেরগাঠা গ্রামের খোকন খন্দকার বলেন, বড় গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। সামান্য বৃষ্টিতে গর্তে পানি জমে থাকায় যানবাহন চলাচলতো দূরের কথা পায়ে হেঁটে যাতায়াতেও কষ্টকর হচ্ছে।

বয়রাগাদী ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান গাজি মোঃ আলা উদ্দীন সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, আমিও এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করি এই রাস্তা এখন মরন ফাঁদে পরিণত হয়েছে। আমি সংস্কারের ব্যাপারে বলেছি।

উপজেলা প্রকৌশলী আমিনুর রহমান সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, দীর্ঘদিন ধরে রাস্তাটি বেহাল দশায় আছে। আমাদের পক্ষ থেকে এটি সংস্কার করার জন্য চেষ্টা চালাচ্ছি। বাজেট পেলেই রাস্তাটি সংস্কার করা যাবে।

সময়ের কন্ঠস্বর

Comments are closed.