লৌহজংয়ে এক বৃদ্ধের রহস্যজনক মৃত্যু

মোঃ রুবেল ইসলাম: উপজেলার লৌহজংয়ের মৌছা গ্রামের বাসিন্দা সাফিয়া বেগম (৭৫) নামে এক বৃদ্ধের রহস্য জনক মৃত্যু হয়েছে। গত শুক্রবার সকাল ৯ টার দিকে এ ঘটনা ঘটলেও থানা পুলিশ খবর পায়নি। সন্ধ্যায় বৃদ্ধের লাশ পার্শ্ববতী কবর স্থানে দাফন করেন।

লৌহজং থানর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আনিচুর রহমান জানান, বৃদ্ধের রহস্য জনক মৃত্যু হয়েছে ওই এলাকার কেউ আমাদের পুলিশকে জানাননি। তবে পুলিশ পরদিন সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের থেকে খবর পেয়েছে। ঘটনাস্থলে যাওয়া হয়নি পরবর্তিতে লাশটির পক্ষ থেকে কেউ অভিযোগ করলে, তদন্ত করা হবে। নিহত বৃদ্ধের পাশের বাড়ির বাসিন্দা তামিম জানান, তারা ওই বাড়িতে ছেলের বউ সহ ৩/৪ জনের মতো সদস্য থাকেন। সাফিয়া বেগম মৃত্যু হয়েছে। সকালে ঘটনা শুনেছি ওই সময় এলাকা বাসি ছুটে আসেন। তবে কাছে অনেকেরেই আসতে দেননি অপমৃত্যু ভেবে বাড়ির লোকেরা।

সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসি আরো জানায়, সাফিয়া বেগমের মৃত্যুর পর মুখে লালা জমেছিল। সাধারন ধারনা বিষ খাওয়ানো হয়েছে। এর আগে মাঝে মধ্যে ছেলে ও ছেলের বউর সংঙ্গে ঝগড়া হইতো কেউ ধামাতে এলে তাকে তারিয়ে দিতো ছেলের বউ নার্গিস আক্তার।

আজ সোমবার সরজমিনে এ প্রতিবেদক অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘটনাটি জানতে চাইলে ঘড়ের দরজা বন্ধ করে রাখেন। এদিকে ওই মৃত্যু বৃদ্ধের একমাত্র ছেলে মোঃ সোহেন খান বলেন, ঘটনার দিন বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে আমার মা প্রতিদিনের মতো ঘুমিয়ে ছিল। পড় দিন শুক্রবার সকাল ৯টায় মা ঘুম থেকে উঠেনি। দেরি কেন, এমন তো হয়না ভেবে জানালা দিয়ে তাকিয়ে দেখি মা রুমের মধ্যে মৃত্যু অবস্থায় আছে। তবে এটি কোন স্বাভাবিক মৃত্যু নয়। আমার মাকে পারিবারিক কলহের কারনেই পরিবারের কেউ অপমৃত্যুটি ঘটিয়েছে। তারাতারি করে তাৎক্ষনিক ভাবে দরজা ভেঙ্গে রুমে ঢুকার চেষ্টা করি ও চিৎকার করি। তাতে এলাকাবাসি ছুটে আসেন। এ ব্যাপারে কাউকে কিছু বলতে পারছি না।

সময়ের কন্ঠস্বর