ফলোআপ: শিশু নির্যাতনের ঘটনায় মামলা: স্বঃস্থির নিশ্বাস সুবর্নার

এম.এম.: মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার রামপাল ইউনিয়নের বল্লাল বাড়ীতে সুবর্না (৬) নামের শিশুকে গৃহ নির্যাতনের ঘটনায় মামলা নিয়েছে পুলিশ। অবশেষে হারানো পিতাকে পেয়ে শিশুটির মধ্যে প্রান চঞ্চললতা ফিরে এসেছে। বুধবার বিকাল থেকে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম বিভিন্ন এলাকায় খোঁজ করতে থাকে মেয়েটির অভিভাবককে। বুধবার রাত ৯ টার দিকে মিরকাদিম পৌরসভার মিরাপাড়া এলাকায় গিয়ে শিশুটির জন্মদাতা পিতা চাঁন মিয়াকে খুঁজে বের করে পৃুলিশ। রাতেই শিশুটির বাবা চাঁন মিয়া বাদী হয়ে শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেছেন বলে জানিয়েছেন পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে সদর থানায় গিয়ে দেখা যায়, শিশুটি তার বাবার সাথে সকালের নাস্তা খাচ্ছেন। কেমন লাগছে অনুভূতি জানতে চাইলে শিশুটি হাঁসি মুখে বলেন, অনেক ভাল লাগছে আজ আমার বাবাকে খুঁেজ পেয়েছি। খাবার সম্পর্কে জানতে চাইলে শিশুটি বলেন, আমার জীবনে এমন ভাল খাবার কখনও খেতে পাইনি । সাংবাদিক ও স্থানীয়রা আমাকে সহযোগিতা করায় আজ আমার বাবাকে ফিরে পেলাম। এখন আমার খুব ভাল লাগছে। আমি এখন ভাল পরিবেশে আসতে পেরেছি । আমি লেখাপড়া করে অনেক বড় হতে চাই।

শিশুটির পিতা চাঁন মিয়া জানান, স্থাণীয় লোকজন এবং সাংবাদিকদের কারনে আজ আমার মেয়েকে ফিরে পেয়েছি। আমার মেয়েকে যারা এমন নির্মম অমানুষিক নির্যাতন করেছে তাদের কঠোর শাস্তি দাবি করছি।

মুন্সীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি ইউনুচ আলী বলেন, শিশুটির জন্মদাতা পিতা চাঁন মিয়াকে খুঁজে পেয়েছি এবং তাকে বাদী করে শিশু আইনে নিয়মিত মামলা নেয়া হয়েছে । শিশুটিকে চিকিৎসাসেবা দিয়ে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য- গতকাল বুধবার স্থানীয় কিছু যুবক এবং গণমাধ্যম কর্মীদের সহযোগিতায় দীর্ঘ ২ বছর বন্ধী দশা থেকে মুক্তি হয়েছিল ৬ বছরের শিশু সুবর্না। সদরের রামপাল ইউনিয়নের বল্লালবাড়ী এলাকার সিরাজ মাদবর স্ত্রী কল্পনা বেগম এ শিশুটিকে দীর্ঘ ২ বছর বন্ধী রেখে অমানুষিক গৃহ নির্যাতন চালায়।

চমক নিউজ