আজ সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল করিম বেপারীর পঞ্চম মৃত্যু বার্ষিকী

আজ বুধবার ২১ সেপ্টেম্বর প্রবীণ জননেতা আলহাজ্ব আব্দুল করিম বেপারীর ৫ম মৃত্যু বার্ষিকী। মরহুম আব্দুল করিম বেপারী পাকিস্তানী ঔপনিবেশিক শাসনামলে জেল-জুলুম-অত্যাচার-নির্যাতনকে উপেক্ষা করে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বাঙালি জাতির মুক্তির সংগ্রামে অনন্য অবদান রেখে গেছেন।

আমাদের সুমহান মুক্তিযুদ্ধে ও স্বাধীনতা লাভের পর দেশ পুনর্গঠনে তিনি অপরিসীম দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করেছেন।
১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে নৃশংসভাবে হত্যা করার পর সামরিক স্বৈরশাসনবিরোধী আন্দোলনে তার সাহসী ভূমিকা অবিস্মরণীয়।

বার্ধক্যজনিত কারণে এই দিনে সকালে ঢাকার বাংলাবাজারে নিজের বাড়িতেই মারা গেছেন তিনি। তার বয়স হয়ে ছিলো ৮৮ বছর। তিনি স্ত্রী, চার ছেলে ও তিন মেয়ে রেখে যান।

মুক্তিযুদ্ধে মুন্সিগঞ্জে আব্দুল করিম বেপারীর অবদান
১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ বর্বর পাকবাহিনী রাতের অন্ধকারে বাঙালির ওপর হত্যাযজ্ঞ চালালে দেশের প্রতিটি এলাকায় প্রতিরোধ গড়ে ওঠে।

মুন্সিগঞ্জ-বিক্রমপুরের জনগণও পিছিয়ে ছিল না। এম কোরবান আলী, শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন, কফিল উদ্দিন চৌধুরী, আব্দুল করিম বেপারী, অ্যাডভোকেট মোঃ সামছুল হক, প্রফেসর মোঃ সামছুল হুদার নেতৃত্বে মুন্সিগঞ্জ বিক্রমপুরের সংগ্রামী জনতা অত্যন্ত সোচ্চার ছিল।

আলহাজ্ব আব্দুল করিম বেপারীর পরিচিতি

আলহাজ্ব আব্দুল করিম বেপারী মুন্সিগঞ্জ জেলার মিরকাদিম পৌরসভাধীন রামগোপালপুর নামের গ্রামের এক ঐতিহ্যবাহী সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে ১৯২৯ সালে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁহার পিতা মরহুম হাজী মোঃ ফালান বেপারী সাহেব একজন সমাজ সেবক ছিলেন। তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর, মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি,প্রাক্তন সংসদ সদস্য, রিকাবী বাজার ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান,রিকাবী বাজার জামিয়া দারুল উলুম ইসলামিয়া মাদ্রাসার প্রাক্তন সভাপতি,রামপাল কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, রিকাবী বাজার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও বিনোদপুর রামকুমার উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি বহু সামাজিক সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান ছিলেন।

মুন্সিগঞ্জ নিউজ

Comments are closed.