গজারিয়ায় গায়েবী পুকুরের সন্ধান, বসতভিটা সহ আধা পাকা বাড়ি উধাও

আব্দুস সালাম: মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার রসুলপুর গ্রামে অলৌকিক ঘটনার ন্যায় এক রাতে বসতভিটা সহ আধা পাকা বাড়ি উধাও হওয়ার ঘটনা ঘটে। সরজমিনে গিয়ে দেখায় যায়, ঘটনা স্থল একটা পানি ভর্তি গভীর পুকুরে পরিনত হয়েছে। অথচ যেখানে ছিল ভরাট জায়গা সহ একটি আধাপাকা টিনের ঘড়। যার ধ্বংসাবশেষ পাওয়া যায় সে পুকুরে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, গত বছরে রসুলপুর গ্রামের মোজাম্মেল হক মিয়াজী একটি ছোট্ট পুকুর সহ সামান্য আবাদি জমিতে বালু ভরাট করে চলতি বছর একটি আধা পাকা বসত ঘর নির্মান করেন। সম্প্রতি ঘরটিতে বসত করার জন্যে ফার্নিচার বসিয়ে পরিপুর্ন করা হয়।

মঙ্গলবার রাতে হঠাৎ করে ভিটে সহ সম্পুর্ন ঘরটি উধাও হয় যায়। নির্দিষ্ট স্থানটি পরিনত হয় একটি গভীর পুকুরে। নিশ্চিন্য হয়ে যায় জায়গাটি। পরে সকালে স্থানীয়রা ডোবাডুবি করে ঘরটির কিছু ধ্বংসাবশেষ উদ্ধার করতে পারলেও খোজ মেলেনি ঘরের ভেতর থাকা টিভি, ফ্রীজ, খাট, আলমারি সহ ইত্যাদি আসবাবপত্র।

এ ঘটনায় সবার মাঝে আতংক বিরাজ করছে। শোনা যাচ্ছে নানা গুজব। পুকুরটি এখন গায়েবী পুকুর নামে পরিচিতি লাভ করেছে। আশে পাশে কয়েক গ্রাম থেকে শত শত উৎসুক জনতা ছুটে আসছে পুকুরটি দেখতে। কেউবা বোতল ভরে পানি নিয়ে যাচ্ছে, কেউ নিয়ে যাচ্ছে মাটি।

তবে ধারনা করা হচ্ছে, সম্প্রতি বালু ভরাট করায় মাটি শক্ত হয়ে বসে নি। যার কারনে ঘড়টি মজবুত না হওয়াতে বর্ষার পানি বেড়ে আস্তে আস্তে বালু সরে গিয়ে ঘরটি ধসে পরে। আবার কেউ ধারনা করছে জায়গাটিতে চোরাবালি থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।

ক্রাইম ভিশন

Comments are closed.