ডিসেম্বরে পদ্মা সেতু দৃশ্যমান হবে ॥ সেতু মন্ত্রী

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, পূনর্বাসন না হওয়া পর্যন্ত বন্যার্তদের পাশে থাকবে সরকার, দূর্গত এলাকায় নোঙ্গরখানা খোলাও হবে।

আজ বৃহস্পতিবার পদ্মা তীরের মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়া গ্রামে বন্যার্তদের ত্রাণ বিতরণকালে তিনি একথা বলেন। ত্রাণ বিতরণ শেষে পদ্মা সেতু সম্পর্কে মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, আগামী ডিসেম্বরে পদ্মা সেতু দৃশ্যমান হচ্ছে। সে অনুযায়ী চীনে তৈরী সুপার স্ট্রাকচার এখন মাওয়ার পথে। সেতুর ২৪ পদ্মায় পাইল স্থাপন হয়েগেছে। এপর্যন্ত সেতুর অগ্রগতি ৩৭ শতাংশ।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে এই ত্রাণ বিতরণের আয়োজন করা হয়। মন্ত্রী ব্যক্তিগতভাবে বন্যার্তদের ১ লাখ টাকা প্রদান করেন। এছাড়া ৫ হাজার বন্যার্ত পরিবারের মাঝে চাল, নগদ অর্থ ও খাবার পানি বিশুদ্ধ করণ ট্যাবলেট বিতরণ করা হয়।

এই ত্রাণ বিতরণকালে আরও বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সাংসদ সাবেক হুইপ অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, অ্যাডভোকেট মৃনাল কান্তি দাস এমপি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ সম্পাদক ডা. বদিউজ্জামান ডাবলু, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য আমিনুল ইসলাম আমিন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ লুৎফর রহমান, উপজেলা চেয়ারম্যান ওসমান গনি তালুকদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ শিকদার, যুগ্ম সম্পাদক মেহেদী হাসান, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপ কমিটির সহ সম্পাদক গোলাম সারোয়ার কবির ও আব্দুল্লা আল মামুন তোফাজ্জল, স্থানীয় কুমারভোগ ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান তালুকদার, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সফিকুল রহমর তুহিন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আওলাদ হোসেন রুহুল, উপ মহিলা সম্পাদিক জাকিয়া সুলতানা শেফালী, জেলা যুবলীগের সভাপতি ফেরদৌস আলম খান, থানা যুবলীগের সভাপতি আলমগীর হোসেন, সাধারণ শাহজাহান খান সাজু, যুবলীগ নেতা উজ্জ্বল শেখ ও যুব লীগ নেতা মো. সুমন প্রমুখ।

এতে সরকারের ত্রাণ তৎপরতা তুলে ধরেন জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল হাসান বাদল।

আয়োজনাটিতে ডা. বদিউজ্জামান ডাবলু ভাই ’৯৮ সালের ভয়াবহ বন্যায় ত্রাণ বিতরণ করতে হিয়ে শহীদ হওয়া প্রকৌশলী কামরুজ্জামান ভূইয়ার কথা স্মরণ করা হয়।

অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি এমপি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী বন্যা চলে যাওয়ার পরও পূনবার্সন না হওয়া পর্যন্ত বন্যার্তদের পাশে থাকবে সরকার ও আওয়ামী লীগ।

জনকন্ঠ

Comments are closed.