শ্রীনগরে রোগীর শরীরে নার্সের দোকানের মেয়াদোত্তীর্ণ স্যালাইন পুশ!

আরিফ হোসেন: শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক রোগীর শরীরে নার্সের দোকানের মেয়াদোত্তীর্ণ স্যালাইন পুশ করা নিয়ে উত্তেজনা দেখা দেয়। গত শনিবার রাত এগারটার দিকে শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এঘটনা ঘটে।

জানাগেছে, উপজেলা পূর্ব বেজগাও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা রুমানা মৃধা নেভীকে অসুস্থ্য অবস্থায় শনিবার রাতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাৎক্ষনিক ভাবে একটি স্যালাইনের নাম লিখে দিয়ে তা নিয়ে আসতে বলেন। নেভীর স্বামী হাসপাতালারে পাশ্ববর্তী জয় ফার্মেসী থেকে লিবরা কোম্পানীর ডায়াসল্ট স্যালাইন এনে দেন। পুশ করার পর স্যালাইনের অর্ধেক শেষ হলে দেখা যায় স্যালাইনের ভেতর শেওলা ভাসছে। নার্স ডেকে স্যালাইন খুলে দেখা যায় এর মেয়াদ আরো চার মাসে আগেই শেষ হয়ে গেছে।

এনিয়ে নেভীর আতœীয় স্বজন ফার্মেসীতে গিয়ে প্রতিবাদ জানায় এবং উত্তেজিত হয়ে পড়ে। স্থানীয়রা জানায়, জয় ফার্মেসীর মালিক হাসপাতালের নার্স সুপারভাইজার রানু বেগম। প্রায় বিশ বছর ধরে তিনি এখানে কর্মরত রয়েছেন। হাসপাতালের সামনে সরকারী খাস জায়গা দখল করে গড়ে তুলেছেন ঔষধের দোকান । অনেকেই অভিযোগ করেন, রানু বেগম প্রভাব খাটিয়ে রোগীদেরকে তার দোকান থেকে ঔষধ কিনতে বাধ্য করেন। কোন রোগী তার দোকানের বাইরে থেকে ঔষধ কিনলে তিনি রোগীদের সাথে খারাপ ব্যবহার করেন। এব্যাপারে রানু বেগমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তার স্বামী সিরাজুল ইসলাম মেয়াদোত্তীর্ণ স্যালাইনের কথা স্বীকার করে উল্টো স্যালাইন কোম্পানীকে দোষারোপ করেন।

এব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও ডা: রেজাউল হক জানান, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা কর্মস্থলে নেই। তাকে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। তিনি আসলে এবিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Comments are closed.