গোবরদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অনিয়ম

সিরাজদিখানে উপজেলার বয়রাগাদি ইউনিয়নে গোবরদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বিরুদ্ধে শ্রেণী কক্ষে প্রাইভেট পড়ানো, ক্লাশে মোবাইলে কথা বলা ও ক্লাশের প্রতি অমনোযোগিতার অভিযোগ উঠেছে।

জানা যায়, প্রধান শিক্ষিকা জাকিয়া সর্দার ও সহকারি শিক্ষিকা আসমা আক্তার সকাল থেকে শ্রেণী কক্ষে ৩য়, ৪র্থ ও ৫ম শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীদের বাধ্যতামূলক প্রাইভেট পড়ান। কেউ তাদের কাছে প্রাইভেট পড়তে নারাজ হলে তাকে ফেল করিয়ে দেন।

২য় শেণীর ছামিয়া জানায়, আমি আসমা ম্যাডামের কাছে প্রাইভেট পড়ি নাই তাই আমাকে ফেল করানো হয়েছে। একই অভিযোগ করেন শিক্ষার্থী সৈকতের বাবা ঠঝহুল আমিনসহ অনেক অভিভাবক।

ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, ক্লাশের মাঝে মোবাইলে প্রেম করার ঘটনা সত্য। তাদেরকে সতর্ক করা হলেও তারা নিজেদের শোধরাননি। এব্যাপারে আমরা আগামি শনিবার ফাইনাল সিদ্ধান্তে বসব। তারা প্রায়ই ক্লাশ রুম খোলা রেখে বাতি জালিয়ে ও ফ্যান চালু রেখে চলে যায়। জাতীয় সঙ্গীত ও শরীর চর্চা করানো হয় না। আবার ছুটির পরে জাতীয় পতাকাও নামায়নি যা আমাদের চোখে ধরা পড়েছে।

প্রধান শিক্ষক জাকিয়া সর্দার বলেন, আমি আর প্রাইভেট পড়াব না। দয়া করে আপনারা এব্যাপারে কিছু লিখবেন না। অন্য বিষয় সব উপজেলা শিক্ষা অফিসার জানে।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার বেলায়েত হোসেন বলেন, ম্যানেজিং কমিটির কেউ আমাকে এ বিষয় জানায়নি। কোন ধরনের অনিয়ম হলে ব্যবস্থা নিব।

জনকন্ঠ

Comments are closed.