চালকের একগুয়েমিতে যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে নিহত ৭ আহত ৩৫

আরিফ হোসেন: ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে চালকের একগুয়েমিতে যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে ৭ জন নিহত হয়েছে। অহত হয়েছে অন্তত ৩৫ জন। শনিবার বিকাল পাচটার দিকে শ্রীনগর উপজেলার কেয়টচিড়া নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ঢাকা থেকে গোপালগঞ্জগামী টুঙ্গীপাড়া এক্সপ্রেসের একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার ডান পাশের খাদে পরে যায়। এসময় ঘটনা স্থলে বাসের ৫ পুরুষ যাত্রী নিহত হয়। নিহতদের মধ্যে ৩ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। এরা হলেন টুঙ্গীপাড়ার লিয়ন মাষ্টার (৪০), বাগের হাটের উত্তর খান পুর এলাকার খলিলুর রহমান (৩৩), শ্রীনগর উপজেলার ব্রাক্ষ¥ন খোলা গ্রামের জলিল খানের ছেলে মঈন খান (২৮)। মঈন খান শ্রীনগর উপজেলার কৃষি ব্যাংকের বালাসুর শাখার কর্মকর্তা। বাকী দুজনের পরিচয় জানা যায়নি। ৫ জনের লাশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রাখা হয়েছে।



এঘটনায় আহত হয়েছে অন্তত ৩০ জন। এদের মধ্যে গুরুতর আহত অজ্ঞাতনামা ১২ -১৫ জনকে ঢাকা মিডফোর্ট ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। পোস্তগোলা ফায়ার সার্ভিসের এম্বুল্যান্সের গাড়ি চালক মনোয়ার হোসেন জানান, তাদের মধ্যে অজ্ঞাতনামা দুজনকে ঢাকা মেডিকেলের কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষনা করেন। অন্যদিকে হাফিজুর (৩১), নিতিশ, মাহফুজ (৩১), শাহনাজ (২৮), সানজিদা (৩৫), মাসুম (২০), ইমা (২), ইমরাণ (৩৫), শিউলী (২৫) কে অন্তত ২০ জনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পরে তাদের মধ্যে গুরুতর আহত ১১ জনকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়।

বেচেঁ যাওয়া একাধিক যাত্রী জানায়, ঢাকা থেকে বাসটি ছাড়ার পরই চালক ও হেলপার বিভিন্ন স্থানে থামিয়ে থামিয়ে যাত্রী উঠাচ্ছিল। এনিয়ে চালকের সাথে যাত্রীদের বাকবিতন্ডা হয়। যাত্রীদের সাথে রাগারাগি করে চালক দ্রুত গতিতে গাড়ি চালালে বাসটি রাস্তার বিপরীত পাশে গিয়ে তিন চারটি গাছকে দুমরে মুচরে খাদে গিয়ে পারে।