১০ দিনেরও খোঁজ মিলেনি আটো চালকের ॥ স্ত্রীর চুরির মামলা

লৌহজং উপজেলার দক্ষিণ হলদিয়া গ্রামের আটো চালক সাইফুল ইসলামের ১০ দিনেও খোঁজ মিলেনি। নিখোঁজের কারণ নিয়ে নানা রহস্য সৃষ্টি হয়েছে। পরিবারের দাবী স্ত্রী সন্তান ফেলে রেখে সে আটোগাড়ী ও নগদ প্রায় ৩০ হাজার টাকা নিয়ে এিখাঁজ হয়। গত ১৯ এপ্রিল লৌহজং থানায় জিডির পর সোমবার স্বামীর বিরুদ্ধে মুন্সীগঞ্জ আদালতে মামলা করেছে তার স্ত্রী সুরভী বেগম। কিন্তু নিখোঁজের মূল কারণ উদঘাটনের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, আটো চালক সাইফুল ইসলাম গত ১৮ এপ্রিল সোমবার সকালে প্রতিদিনকার মত তার গাড়ীটি নিয়ে যাত্রীর সন্ধানে বের হয়। কিন্তু দুপুর গড়িয়ে সন্ধ্যা হয়ে গেলেও সাইফুর আর বাড়িতে ফিরেনি। ওই দিন থেকে সাইফুলের মোবাইলটিও বন্ধ রয়েছে। এই নিয়ে পরিবারের মাঝে দুশ্চিন্তা বিরাজ করছিল। পরের দিন মঙ্গলবার তার স্ত্রী সুরভি বেগম লৌহজং থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে।

স্ত্রী সুরভী বেগম জানিয়েছেন, প্রথমে ভেবে ছিলাম সাইফুলের কিছু হয়েছে। কিন্তু পরবর্তীতে দেখতে পাই প্রায় ৮০ হাজার টাকা দিয়ে আমি তাকে যে আটো গাড়ীটি কিনে দিয়েছি সেটির চার্জারটি ঘরে নেই। চার্জারটি সাধারণত বাড়িতে থাকে এবং আটোগাড়ীটি বাড়িতেই চার্জ দেয়া হয়। তাছাড়া সমিতি থেকে উঠানো ২৮ হাজার টাকা ও আমার মোবাইলসেটসহ নগদ প্রায় ৩০ হাজার টাকা ঘর থেকে নিয়ে গেছে সাইফুল। সাইফুল পরিকল্পিতভাবেই নিখোঁজ হয়েছে। আমার আটোগাড়ী ও টাকা ফেরত পেতে গত সোমবার সাইফুলের বিরুদ্ধে মুন্সীগঞ্জ আদালতে একটি চুরির মামলা করেছি। এতে সাইফুল ও তার ভাই বাবন বেপারী ও পাশের বাড়ী শাহানা বেগম নামে এক মহিলাকে আসামী করা হয়েছে।

লৌহজং থানার ওসি মোল্লা জাকির হোসেন জানান, বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে। নিখোঁজের সঠিক কারণ উদঘাটনের চেষ্টা চলছে।

জনকন্ঠ

Comments are closed.